আসাম

অবশেষে হিজাব পরার অনুমতি দিয়েছে গৌহাটি হাইকোর্ট

দিসপুর, ৩১ মে – হিজাব পরায় চার বছরের ছাত্রীকে স্কুলে যেতে বারণ করেছিল কর্তৃপক্ষ। প্রতিবাদে গোলাঘাটের খ্রিষ্টজ্যোতি উচ্চ বিদ্যালয়ের বিরুদ্ধে মামলা করেন ওই ছাত্রীর মা। ৯ বছর ধরে মামলা চলার পর অবশেষে হিজাব পরার অনুমতি দিয়েছেন গৌহাটি হাইকোর্ট।

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানটির কর্তৃপক্ষও জানিয়েছে, দশম শ্রেণি পর্যন্ত ওই ছাত্রী হিজাব পরে ক্লাস করতে পারবে।

২০১৩ সালের ২১ মার্চ ওই ক্যাথলিক স্কুলে নার্সারি শ্রেণির ক্লাস টিচার চার বছরের ছাত্রীটির হিজাব পরা নিয়ে আপত্তি তোলেন। ২৫ মার্চ মেয়েটির পরিবার ইসলাম ধর্মাবলম্বী ছাত্রীর জন্য পোশাকবিধি শিথিল করার আবেদন জানায়। কিন্তু ২৮ মার্চ অধ্যক্ষের তরফে নোটিস পাঠিয়ে জানানো হয়, ১৫ দিনের মধ্যে ফাহিমাকে হিজাব ত্যাগ করে স্কুলের পোশাকবিধি পালন করতে হবে। ৮ এপ্রিল আদালতের দ্বারস্থ হন মেয়েটির মা এলি আহমেদ। ছাত্রীর বাবা সানামন এ আর আসাম রাইফেলসের কর্মী। তিনি কেরালার বাসিন্দা।

মামলা করার পরে অবশ্য স্কুল কর্তৃপক্ষ ফাহিমাকে হিজাব পরেই ক্লাসে আসার অনুমতি দিয়েছিলেন। সম্প্রতি চূড়ান্ত শুনানিতে হাজির হন স্কুলের উপাধ্যক্ষ নিকোলাল কেরকেট্টা। তিনি আদালতকে জানান, মানবিকতার খাতিরে তারা অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত ফাহিমাকে হিজাব পরে স্কুল করার অনুমতি দিয়েছিলেন।

স্কুলের ভূমিকার প্রশংসা করে আদালত জানতে চান, গত ৯ বছর যখন অনুমতি দেওয়া হয়েছে, তখন একই স্কুলে আরও দুই বছর ফাহিমা পড়তে পারে কি না। কেরকেট্টা জানান, ফাহিমাকে দশম শ্রেণি পর্যন্ত পড়ার অনুমতি দেওয়া হবে।

সূত্র : জাগো নিউজ
এম এস, ৩১ মে

Back to top button