ফুটবল

ব্যালন ডি’ অর জিতবেন বেনজেমা: মেসি

গত বছর রেকর্ড সপ্তম বারের মতো ব্যালন ডি’অর জয় করে নিজেকে অনন্য উচ্চতায় নিয়ে গেছেন আর্জেন্টাইন তারকা লিওনেল মেসি। তবে গেলো মৌসুমেই বার্সেলোনা ছেড়ে পিএসজিতে পাড়ি জমানো মেসির জন্য এই মৌসুমটা ভালো কাটেনি কোনোভাবেই। স্বাভাবিকভাবেই এবার ব্যালন ডি’অর জেতার দৌড়ে থাকবেন না তিনি, এটি যেমন ফুটবল প্রেমীরা জানেন তেমন জানেন মেসি নিজেও।

আগেই রেস থেকে ছিটকে যাওয়া ইতিহাসের সর্বোচ্চ ব্যালন ডি’অর জয়ী এই ফুটবলার অবশ্য আগের থেকেই বেছে নিলেন এবারের এই পুরষ্কার কে জিততে চলছেন তার নাম। শুধু বেছে নেওয়াই নয়, অকপটে স্বীকারও করলেন, দুর্দান্ত মৌসুম কাটানো রিয়াল মাদ্রিদের ফরাসি স্ট্রাইকার করিম বেনজেমার এবারের ব্যালন ডি’অর জয় নিয়ে কোনো প্রকার সন্দেহের অবকাশও নেই।

আসন্ন কাতার বিশ্বকাপসহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে সোমবার (৩০ মে) টিওয়াইসি স্পোর্টসকে মনখোলা এক সাক্ষাৎকার দিয়েছেন মেসি। সেই সাক্ষাৎকারে স্বভাবতই উঠে সে এই বছর ব্যালন ডি’অরের বিষয়টি।

এই মৌসুমে ব্যালন ডি’অর জয়ী হিসেবে বেনজেমাকেই দেখছেন তিনি এই কথা জানিয়ে মেসি বলেন, ‘আমার মনে হয়, এই বিষয়ে আর দ্বিধার কোনো অবকাশ নেই। এটা স্পষ্ট যে বেনজেমা দুর্দান্ত একটা বছর কাটিয়েছে এবং চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জিতে যার শেষ করেছে। শেষ ষোলো থেকে শুরু করে নক-আউট পর্বের সবগুলো ম্যাচে সে দলের জয়ের কারিগর ছিল। আমার মনে হয়, এ বছর তার ব্যালন জয় নিয়ে কোনো সন্দেহের অবকাশ নেই।’

এবছর রিয়াল মাদ্রিদের চ্যাম্পিয়নস লিগ জয়ের সবচেয়ে বড় কারিগর ছিলো এই বেনজেমাই। টুর্নামেন্টজুড়ে সর্বোচ্চ ১৫ গোল করেছেন ফরাসি এই স্ট্রাইকার, যার ভেতর ১০ টিই এসেছে নক-আউট স্টেজে। নক-আউটের প্রতি ভাগেই রিয়াল মাদ্রিদের প্রত্যাবর্তনের গল্প লেখার পেছনে নায়ক ছিল এই ‘বিগ বেঞ্জ’।

এদিকে সন্দেহের কথা উঠে আসাতে গেলবারের ব্যালন ডি’অর প্রসঙ্গও সামনে চলে আসে। গতবছর ব্যালন ডি’অর জিতেছেন মেসি, তবে অনেক বিশেষজ্ঞ মনে করেন সেটি প্রাপ্য ছিল রবার্ট লেওয়ান্ডভস্কির। বায়ার্নের এই পোলিশ স্ট্রাইকার নিজেও জোরগলায় বলেছেন সে কথা।

তবে মেসি নিজে সেসব বিষয় নিয়ে ভাবতে চান না কোনোভাবেই। তার ভাষাতে, ‘মানুষ নিজে যা চায়, তাই বলতে পারে। আর তাই সেও (লেওয়ান্ডভস্কি) অবশ্যই তার মনের কথা বলতেই পারে। তবে সে যা বলছে আমি এমনটা মনে করি না। এছাড়া সত্যি বলতে, আমি এটা তেমন পাত্তাও দেইনি কখনও।’

সূত্র : বাংলাদেশ জার্নাল
এম এস, ৩১ মে

Back to top button