সম্পর্ক

বিয়ের আগে কনে কি কি প্রস্তুতি নিবেন?

বিয়ে প্রতিটি মেয়ের জীবনে একটি গুরুত্বপূর্ণ অধ্যায়। বিয়ের দিন নিজেকে সুন্দর ভাবে উপস্থাপন করা প্রতিটি মেয়েরই স্বপ্ন। তাই আগে থেকেই কনেকে নিতে হবে প্রস্তুতি। এসময় কনের নিজের প্রতি নিতে হবে বাড়তি যত্ন। মানসিক এবং শারীরিকভাবে থাকতে হবে সুস্থ এবং সবল। আগে থেকে প্রস্তুতি নিলে অনেক কাজ এগিয়ে থাকবে এবং বিয়ের দিন কনে থাকবে চাপমুক্ত।

আসুন জেনে নেই বিয়ের আগে কি কি প্রস্তুতি নিবেন-

রুপচর্চা

বিয়ের আগে চুল ও ত্বকের যত্ন নেয়া খুবই জরুরি। বিয়ের আগে পার্লারে গিয়ে ব্রাইডাল প্যাকেজটা নিতে পারেন। এতে করে একেবারেই ত্বক ও চুলের যত্ন নেয়া হয়ে যাবে। তবে বিয়ের আগে অনেকেই ব্যস্ত হয়ে পড়েন। পার্লারে যাওয়ার সুযোগ থাকেনা। তারা চাইলে ঘরেই করতে পারেন রূপচর্চা। অন্তত ২ সপ্তাহ আগে থেকে শুরু করে দিন রূপচর্চা।

 চুলের যত্নের জন্য প্রতিদিন ব্যবহার করতে পারেন ডিম। ডিমের সাথে নারকেল তেল এবং সামান্য মধু মিশিয়ে চুলে লাগিয়ে ২০ মিনিট পর ভালো করে শ্যাম্পু করে নিন। শ্যাম্পুর পরে অবশ্যই কন্ডিশনার ব্যবহার করতে ভুলবেন না। এতে করে চুল থাকবে ঝলমলে ও উজ্জ্বল। প্রতিদিন রাতে মাথায় তেল ম্যাসাজ করে ঘুমালে আরও ভালো উপকার পাবেন।

 ত্বকের যত্নের জন্য আপনাকে করতে হবে স্ক্রাবিং। ১ চামচ অলিভওয়েল এর সাথে এক চামচ চিনি দিয়ে তৈরি করতে পারেন ঝামেলা ছাড়াই স্ক্রাব। এতে করে ত্বকের ছোপ ছোপ কালো দাগ ও রোদে পোড়া ভাব দূর হবে। মুখের ত্বকের পাশাপাশি হাত-পা স্ক্রাবিং করুন ভালো করে। যতোটা সম্ভব বিয়ের আগে অন্তত ২ সপ্তাহ বাইরে রোদে বের হওয়া এড়িয়ে চলুন। যেতে হলে ত্বকে সানস্ক্রিন ব্যবহার করতে একদমই ভুলবেন না।  কাঁচা হলুদ, গাজর, শসা, জলপাইয়ের তেল, দুধ দিয়ে ফুল বডি পলিশিংয়ের জন্য প্যাক তৈরি করে নিতে পারেন। ২ সপ্তাহ আগে থেকে একদিন পরপর নিয়মিত ব্যবহার করুন। এতে করে ত্বক হয়ে উঠবে উজ্জ্বল। রাতে ঘুমানোর আগে ময়শ্চারাইজার ব্যবহার করতে একদমই ভুলবেন না।

 ঘরে বসেই করে নিতে পারেন মেনিকিওর-পেডিকিওর। এর জন্য আগে হাত ও পায়ের নখগুলো পছন্দের শেপে কেটে নিন। এরপর মুলতানি মাটি, মধু এবং গোলাপ জল মিশিয়ে তৈরি করে নিতে পারেন মেনিকিওর-পেডিকিওর এর জন্য প্যাক। হাতে পায়ে এই প্যাক ব্যবহার করে ২০ মিনিট অপেক্ষা করে ধুয়ে ফেলুন। এতে করে হাত পা আরও উজ্জ্বল দেখাবে।

 বিয়ের আগে কনের চোখের নিচে অনেক সময় কালো দাগ পড়ে যায়। কারন ঠিকমতো অনেকেই ঘুমিয়ে থাকেন না। তাই বিয়ের আগে আপনাকে পর্যাপ্ত পরিমাণ ঘুমাতে হবে। এছাড়া প্রতিদিন চোখের নিচে শসা অথবা শসার রস ব্যবহার করতে পারেন। এতে করে চোখের নিচের কালো দাগ এবং চোখের নিচের ফোলা ভাব দূর হয়।

শারীরিক যত্ন

বিয়ের আগে শুরু করতে পারেন এক্সারসাইজ। তবে শুরুতেই খুব বেশি এক্সারসাইজে করতে যাবেন না। দুই সপ্তাহ আগে থেকেই নিয়মিত হাঁটা শুরু করুন। এছাড়া প্রতিদিন ট্রেডমিলে ২০ মিনিট করে দৌড়াতে পারেন। এছাড়া ঘরে বসেই টুকটাক এক্সসারসাইজ করতে পারেন। ইউটিউব এ অনেক ধরনের ব্যায়াম করার কৌশল এর ভিডিও রয়েছে যা দেখে আপনি শিখে নিতে পারেন। তবে এই সময়টা নিজেকে রাখতে হবে রিল্যাক্স। নিজেকে রিল্যাক্স রাখার একটি সহজ উপায় হলো মেডিটেশন। এই সময়টা নার্ভাস হয়ে যাওয়া খুবই স্বাভাবিক। তাই এর জন্য নিয়মিত মেডিটেশন করতে পারেন। এতে করে আপনি থাকবেন দুশ্চিন্তামুক্ত।

মানসিক প্রস্তুতি

বিয়ের সময় মানসিক প্রস্তুতি হল সবচেয়ে বড় প্রস্তুতি। বিয়ে সবার জীবনেই একটি গুরুত্বপূর্ণ সম। তাই বিয়ের আগে ভালো করে জেনে নেয়ার চেষ্টা করুন আপনার জীবনসঙ্গীর পছন্দ অপছন্দকে। এজন্য বিয়ের আগে সম্ভব হলে একে অন্যকে সময় দিন। ঘোরাঘুরি করতে পারেন। গল্প করতে পারেন। বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হওয়া মানে শুধু স্বামী-স্ত্রীই নয়, অন্য আরেক পরিবারের সাথে একটি নতুন সম্পর্ক গড়ে ওঠা। তাই দুজনকেই পরস্পরের পরিবারের সঙ্গে মানিয়ে চলার মন মানসিকতার প্রস্তুতি নিতে হবে। তাই সংসার নিয়ে হতাশামুক্ত থাকুন, নিজেকে মানিয়ে নেয়ার চেষ্টা করুন। খুঁটিনাটি সবার জীবনেই সমস্যা থাকে। তাই সমস্যা গুলো নিয়ে হতাশ না হয়ে চেষ্টা করবেন সেগুলোর সমাধানের জন্য।

প্রয়োজনীয় জিনিস গুছানো

আপনার কি কি জিনিস দরকার তার একটি তালিকা আগে থেকে করে ফেলুন। যাতে পরে গিয়ে চাপ না পড়ে। এছাড়া নতুন পরিবারে যাওয়ার সময় সঙ্গে করে কি কি জিনিস নিয়ে যাবেন তা আগে থেকেই একটু একটু করে গুছিয়ে রাখুন। এতে করে সময় অপচয় কম হবে। এছাড়া বিয়ের সাঁজ কোথায় করাবেন, বাসায় না পার্লারে তার পূর্ব প্রস্তুতি নিয়ে রাখুন।

এম এস, ৩০ মে

Back to top button