জাতীয়

গাফফার চৌধুরী মুক্তিযুদ্ধে গুরুদায়িত্ব পালন করেছেন: মোজাম্মেল হক

গাজীপুর, ২৮ মে – মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেছেন, আব্দুল গাফফার চৌধুরী শুধু মহান শহীদ দিবসে প্রভাতফেরীর সঙ্গীতই রচনা করেননি, তিনি মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় এ দেশে পাক হানাদার বাহিনীর বর্বরতার কথা সারা বিশ্বের মানুষের কাছে পৌঁছে দিয়েছেন। তিনি জয়বাংলা পত্রিকা সম্পাদনা করে মুক্তিযোদ্ধাদের খবর সর্বত্র পৌঁছে দিয়েছি গুরুদায়িত্ব পালন করেছেন। তিনি আওয়ামী লীগের সমালোচনা করেছেন ঠিক, কিন্তু আওয়ামী লীগের নীতি আদর্শের প্রতি তার শ্রদ্ধা ও ভালবাসা ছিল অগাধ।

শনিবার দুপুরে গাজীপুরের শ্রীপুরের একটি রিসোর্টে অনুষ্ঠিত ৮০-৯০ দশকের গাজীপুর ছাত্রলীগের পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

মন্ত্রী আরও বলেন, রাজনৈতিক দলের ক্ষমতায় যাওয়ার তিনটি পথ রয়েছে। একটি নির্বাচনের ব্যালটের মাধ্যমে, অপর দুটি গণআন্দোলন ও গণঅভ্যুত্থান। আওয়ামী লীগ সবগুলো পথই ব্যবহার করতে জানে। অথচ বিএনপি ক্ষমতায় যাওয়ার কোন পথই জানে না। তারা নির্বাচনে না গিয়ে ভোটকেন্দ্র পুড়িয়ে দেয়, মানুষ হত্যা করে, বিদেশিদের কাছে নালিশ করে। অথচ এগুলো করে ক্ষমতায় যাওয়া যায় না।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগের উদ্দেশ্য এক অভিন্ন। জাতির পিতার হাতে প্রতিষ্ঠিত ছাত্রলীগ জাতীর দুঃসময়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে। দেশে থাকা অন্যান্য রাজনৈতিক সংগঠনের আত্মপ্রকাশ হওয়ার পর তাদের লেজুরবৃত্তি করতে ছাত্রসংগঠনের জন্ম হলেও একমাত্র ছাত্রলীগের ইতিহাসই ব্যতিক্রম। এর ইতিহাস গৌরবের ইতিহাস।

তিনি আরও বলেন, এখন ডিজিটাল যুগ। এ যুগ দিয়ে ৮০ ও ৯০ এর দশক বা আগের আন্দোলন সংগ্রামের ঘটনা বিবেচনা করা যাবে না। ডিজিটালের এ যুগে নতুন প্রজন্মের চ্যালেঞ্জ হল আওয়ামী লীগ তথা সরকারের বিরুদ্ধে সকল অপপ্রচার কীভাবে মোকাবিলা করতে হবে, আন্দোলন কত কঠিন, কত ত্যাগের ও ধৈর্য্যরে বিনিময়ে সফলতা অর্জন হয় তা তাদেরকে জানাতে হবে।

পুনর্মিলনী কমিটির আহ্বায়ক আব্দুল হাদী শামীমের সভাপতিত্বে এতে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, গাজীপুর-৫ আসনের সংসদ সদস্য মেহের আফরোজ চুমকি, গাজীপুর জেলা পরিষদের প্রশাসক আখতারুজ্জামান, গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আজমত উল্লাহ খান, গাজীপুর মহানগর আওয়ামীগের সহ-সভাপতি কাজী আলিম উদ্দিন বুদ্দিন, শ্রীপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. শামসুল আলম প্রধান, ভাওয়াল বদরে আলম কলেজের সাবেক ভিপি ও পুনর্মিলনী কমিটির সদস্য সচিব মো. আবদুল হালিম সরকার, মহানগর আওয়ামী লীগের সদস্য মো. আবুল কাসেম প্রমুখ।

পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানের সদস্য সচিব আবদুল হালিম সরকার বলেন, বর্তমান সফল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ৮০-৯০ দশকের ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা মুজিব আদর্শ বাস্তবায়নে প্রাণপন লড়াইয়ে অবতীর্ণ হন। বিভিন্ন আন্দোলণে অংশ নিয়ে গণতান্ত্রিক দাবি আদায়ে বলিষ্ঠ ভূমিকা রেখেছে। নতুন প্রজন্মকে ওইসব কাজে উদ্বুব্ধ করতেই এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।

সূত্র : বাংলাদেশ জার্নাল
এম এস, ২৮ মে

Back to top button