জাতীয়

ভারত থেকে অনুপ্রবেশকারী রোহিঙ্গাদের পুশব্যাক করা হবে

কক্সবাজার, ২৭ মে – ভারত থেকে বাংলাদেশে রোহিঙ্গাদের অনুপ্রবেশ ঘটলে তাদের পুশব্যাক করা হবে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

তিনি বলেছেন, অপরাধ দমনে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের টহল জোরদার করা হবে। প্রয়োজনে মোতায়েন করা হবে বিজিবি ও র‍্যাব। এরপরও অপরাধ দমন না হলে ক্যাম্পে সেনাবাহিনী মোতায়েন করা হবে।

বৃহস্পতিবার রাতে কক্সবাজার জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের এটিএম জাফর আলম সম্মেলন কক্ষে বলপ্রয়োগে বাস্তুচ্যুত মিয়ানমার নাগরিকদের সমন্বয়, ব্যবস্থাপনা ও আইনশৃঙ্খলা সম্পর্কিত নির্বাহী কমিটির ১৭তম সভা শেষে সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, রোহিঙ্গাদের নিজদেশে ফিরিয়ে দেওয়ার করণীয় বিষয়ে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। ক্যাম্পে যারা আছে তারা যাতে ক্যাম্পের বাইরে যেতে না পারে সে ব্যাপারে যথেষ্ট নজরদারি থাকবে। বর্তমানে যে পরিমাণ এপিবিএন সদস্য সেখানে কাজ করছে তা আরও বাড়ানো হবে। প্রয়োজনে বিজিবি, র‍্যাব এবং সেনা মোতায়েন করা হবে।

তিনি বলেন, ২০১৭ সালে একসঙ্গে সাত-আট লাখ রোহিঙ্গা আসার পর থেকে তাদের জনসংখ্যা দিন দিন বাড়ছে। জন্ম নিয়ন্ত্রণে তাদের সচেতন করার বিষয়টি সভায় আলোচনা হয়েছে। গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে তাদের চিকিৎসার বিষয়ে। রোহিঙ্গাক্যাম্পের ভেতরে ও বাইরে মাদক নিয়ন্ত্রণে জোরালোভাবে কাজ করবে সংশ্লিষ্ট আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, রোহিঙ্গাদের নিরাপত্তাবেষ্টনীর বাইরে যাওয়া, ভেতরে মাদক কারবার ও অপরাধ কর্মকাণ্ড তদারক করতে ক্যাম্পের ভেতরে ও বাইরে সিসিটিভি ক্যামেরা স্থাপন করা হবে।

সিদ্ধান্ত মোতাবেক রোহিঙ্গাদের ভাসানচরে নেওয়ার কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে বলেও উল্লেখ করেন স্বারাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

সভায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রাণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সিনিয়র সচিব আখতার হোসেন, আইজিপি ড. বেনজির আহমদ, বিজিবির মহাপরিচালক মেজর জেনারেল শাকিল আহমেদ, কক্সবাজার ত্রাণ ও রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন কমিশনার শাহ রেজোয়ান হায়াত ও কক্সবাজার জেলা প্রশাসক মো. মামুনুর রশীদসহ বিভিন্ন সংস্থার প্রতিনিধিগণ উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে বৃহস্পতিবার বিকেল ৫টার দিকে দুইদিনের সফরে কক্সবাজার আসেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।
রাঙ্গামাটি থেকে হেলিকপ্টার যোগে কক্সবাজার বিমানবন্দরে পৌঁছালে কক্সবাজার-৩ (সদর-রামু) আসনের সংসদ সদস্য, তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয় বিষয়ক সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য সাইমুম সরওয়ার কমল, কক্সবাজার-২ (মহেশখালী-কুতুবদিয়া) আসনের সংসদ সদস্য আশেক উল্লাহ রফিক, জেলা ও পুলিশ প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি রেজাউল করিম, সংস্কৃতি বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট তাপস রক্ষিতসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ তাকে ফুল দিয়ে স্বাগত জানান।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর শুক্রবার (২৭ মে) সকাল সাড়ে ১০টায় বিজিবি কক্সবাজার রিজিওনের বাৎসরিক মাদকদ্রব্য (মালিকবিহীন) ধ্বংসকরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে যোগ দেওয়ার কথা রয়েছে।

সূত্র: যুগান্তর
এম ইউ/২৭ মে ২০২২

Back to top button