দক্ষিণ এশিয়া

জেলে কেরানির ভূমিকায় সিধু, দৈনিক পারিশ্রমিক ৯০ রুপি

চণ্ডীগড়, ২৬ মে – পাঞ্জাবের পটিয়ালা জেলে কেরানি হিসেবে কাজ করতে হবে পাঞ্জাব কংগ্রেসের সাবেক প্রধান নভজিৎ সিং সিধুকে। এ বিষয়ে সিধুকে তিন মাসের প্রশিক্ষণ দেয়া হবে। কীভাবে আদালতের দীর্ঘ রায় সংক্ষিপ্ত করে লিখতে হয় এবং জেলের বিভিন্ন নথি সংরক্ষণ করতে হবে- তিন মাস ধরে তা-ই শেখানো হবে সিধুকে। তবে জেলের নিয়ম অনুযায়ী, প্রথম তিন মাস সিধুকে কোনও পারিশ্রমিক দেয়া হবে না।

প্রশিক্ষণ শেষ হওয়ার পর তাকে প্রতিদিনের পারিশ্রমিক বাবদ ৪০ থেকে ৯০ টাকা পর্যন্ত দেয়া হবে। তবে তিনি কত টাকা মজুরি বাবদ পাবেন, তা নির্ভর করবে তার কাজের দক্ষতার উপর। সকাল ৯টা থেকে ১২টা এবং বিকেল ৩টা থেকে ৫টা পর্যন্ত সিধুকে কাজ করতে হবে। জেল থেকে আয় তার ব্যাংক অ্যাকাউন্টে জমা হবে বলেও জেল কর্তৃপক্ষ সূত্রে জানা গেছে।

জেল সূত্রে আরও জানা গেছে, সিধু বড় মাপের ব্যক্তিত্ব হওয়ার কারণে তিনি আপাতত জেলের কুঠুরি থেকেই কাজ করবেন। আপাতত তাকে নিজের কুঠুরি থেকে বেরোতে দেয়া হবে না বলেও জানা গেছে। পাশাপাশি, সিধুকে যেখানে রাখা হয়েছে তার চারপাশে নিরাপত্তারক্ষীর সংখ্যাও বাড়ানো হয়েছে। এ ছাড়াও পাঁচ ওয়ার্ডেন এবং চার কারাবন্দিকেও সিধুর উপর বিশেষ নজর রাখতে বলা হয়েছে।

জেল কর্তৃপক্ষ সূত্রে আরও জানা গেছে, মঙ্গলবার কেরানি হিসেবে কাজ শুরু করেন সিধু।

প্রসঙ্গত, ৩৪ বছরের পুরনো একটি অনিচ্ছাকৃত খুনের মামলায় প্রাক্তন জাতীয় ক্রিকেটারকে বৃহস্পতিবার এক বছর জেলের সাজা দিয়েছে ভারতের শীর্ষ আদালত। ১৯৮৮-এর ২৭ ডিসেম্বর পটিয়ালার রাস্তায় গাড়ি পার্কিংকে কেন্দ্র করে গুরনাম সিং নামে এক ব্যক্তির সঙ্গে ঝামেলায় জড়িয়ে পড়েন সিধু ও তার বন্ধু রুপিন্দ্র সিং সান্ধু। তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ, গুরনামকে গাড়ি থেকে জোর করে টেনে বের করে মারধর করেন তারা। ওই ঘটনার কয়েক দিন পর মারা যান গুরনাম।

সূত্র : বাংলাদেশ জার্নাল
এম এস, ২৬ মে

Back to top button