ক্রিকেট

রাজিথার জোড়া আঘাতে ভেস্তে গেলো সকালের শুরুটা

ঢাকা, ২৪ মে – মিরপুর টেস্টের দ্বিতীয় দিন সকালের শুরুটা বেশ ভালোভাবেই করেছিলো বাংলাদেশ। সাবধানী ব্যাটিংয়ে দুজন এগিয়েও যাচ্ছিলেন বেশ ভালোভাবেই। কিন্তু খুব বেশিক্ষণ আর মনোযোগ ধরে রাখতে পারলেন না লিটন দাস। দ্বিতীয় দিনের ৮ম ওভারে কাসুন রাজিথার বলে সাজঘরের পথে ফেরেন এই উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান। তার বিদায়ে ভাঙে মুশফিকের সাথে ২৭২ রানের ইতিহাসগড়া জুটি।

লিটন আউট হওয়ার ঠিক তিন বলের ভেতরেই টাইগাররা হারায় আরেকটি উইকেট। প্রায় সাড়ে তিন বছর পর টেস্ট খেলতে নামা মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত সাঝঘরে ফেরেন খালি হাতেই। রাজিথার এক ওভারেই চার বলের ব্যবধানে দুই উইকেট হারিয়ে ফেলায় কিছুটা চাপেও পড়ে যায় বাংলাদেশ।

দ্বিতীয় দিন সকালের শুরুর আধঘণ্টা সাবধানী ব্যাটিংয়ে কাটিয়ে দিলেও হঠাৎই যেন ছন্দপতন। দিনের শুরু থেকেই লিটন খেলছিলেনও বেশ সাবধান হয়েই। কিন্তু নিজের ইনিংসকে আর খুব বেশি টানতে পারেননি লিটন। ৯৩ ওভারের প্রথম বলটি অফ স্টাম্পের ওপর লেংথে করেন রাজিথা। হালকা ভেতরে আসতে থাকা বল লিটনের ব্যাটের বাইরের কানা ছুঁয়ে চলে যায় দ্বিতীয় স্লিপে। দারুণ দক্ষতায় নিচু ক্যাচটি তালুবন্দি করেন কুসল মেন্ডিস।

নিজের ক্যারিয়ার সেরা ১৪১ রান করা লিটনের বিদায়ে ভেঙে ৫১৩ বলের ২৭২ রানের রেকর্ড জুটি। ১৪১ রান করতে লিটন খেলেছেন ২৪৬ বল। ১৬ চার আর ১ ছক্কায় প্রায় ৫৮ স্ট্রাইক রেটে রান তোলেন লিটন।

তিন বছর পর টেস্ট দল ফেরা মোসাদ্দেক ফিরে যান লিটন ফেরার মাত্র ৩ বলের ভেতরেই। লিটন আউট হওয়ার তিন বল পরেই সাজঘরের পথ ধরেন সৈকত। রাজিথার সুইং করে বেরিয়ে যাওয়া বল খোঁচা দিয়ে শূন্য রানে কিপারের গ্লাভসে ধরা পড়লেন তিনি।

চট্টগ্রাম টেস্টে কনকাশন বদলি হিসেবে মাঠে নামা রাজিথা এই টেস্টে সুযোগ পেয়েই নিজেকে প্রমাণ করেছেন দারুণভাবে। টেস্ট ক্যারিয়ারে প্রথম পাঁচ উইকেটের দেখাও পেয়ে গেলেন রাজিথা।

এক ওভারে জোড়া আঘাতে এলোমেলো হওয়া আটকাতে মুশফিক আর তাইজুল মিলে আবারও রয়েছে জুটি গড়ার চেষ্টায়। দুজন মিলে বাংলাদেশের রান পার করেছে তিনশর ঘর।

এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত বাংলাদেশের সংগ্রহ ৭ উইকেটে ৩১৮ রান। ক্রিজে থাকা মুশফিক করেছেন ২৮৬ বলে ১৪৪ আর ২৩ বলে ৪ রান করে তাকে সঙ্গ দিচ্ছেন মাত্রই ক্রিজে আসা তাইজুল।

সূত্র : বাংলাদেশ জার্নাল
এম এস, ২৪ মে

Back to top button