সিলেট

বন্যায় দুর্ভোগে নগরবাসী, কবে ফিরবেন মেয়র আরিফ

সিলেট, ১৮ মে – হঠাৎ বন্যায় নাকাল সিলেটবাসী। নগরীর লক্ষাধিক মানুষ পানিবন্দি। তিন দিন ধরে বাসাবাড়ি, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, অফিস জলাবদ্ধ অবস্থায় রয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে সিলেট সিটি করপোরেশনের (সিসিক) মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীর অনুপস্থিতি নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে নগরবাসীর চরম ভোগান্তির সময়ে ‘নগরপিতার’ লন্ডনে অবস্থা নিয়ে তীব্র সমালোচনা হচ্ছে। তিনি কবে ফিরবেন, তাও নির্দিষ্ট করে কেউ বলতে পারছেন না। তবে মেয়রের ঘনিষ্ট সূত্র জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার সকালে তিনি ফিরছেন।

বর্তমান ভয়াবহ বন্যা পরিস্থিতির জন্য নগরীর ভেতর দিয়ে প্রবাহিত সুরমা নদী উপচে পড়াকে দায়ী করছে সিসিক। তবে নগরবাসী অপরিকল্পিত উন্নয়ন, ছড়া-খাল উদ্ধার, ড্রেন সংস্কার ও নির্মাণে ধীরগতিতে ভোগান্তি দাবি করে সিসিককে কাঠগড়ায় দাঁড় করাচ্ছেন। উদ্ভুত পরিস্থিতিতে বুধবার স্থানীয় সংসদ সদস্য পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আব্দুল মোমেন পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করতে ছুটে এসেছেন। দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ড. এনামুল হককে সঙ্গে নিয়ে নগরীতে বন্যাকবলিত মানুষের মধ্যে ত্রাণ বিতরণ করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

অন্যদিকে বর্তমান দুর্যোগময় পরিস্থিতিতে মেয়র আরিফ ব্যক্তিগত সফরে লন্ডনে অবস্থান করছেন। ৮ মে লন্ডনে বসবাসরত মেয়ের সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে তিনি সস্ত্রীক লন্ডনে যান। এজন্য ১৪ মে পর্যন্ত প্যানেল মেয়র-১ কাউন্সিলর মোহাম্মদ তৌফিক বকসকে লিখিতভাবে ভারপ্রাপ্ত মেয়রের দায়িত্ব দিয়ে যান।

তবে বুধবার রাতে ভারপ্রাপ্ত মেয়র তৌফিক বকস জানান, মেয়র আরিফ কবে ফিরবেন তা তিনি জানেন না। তিনি বলেন, মেয়রের অনুপস্থিতিতে তিনি দায়িত্ব পালন করবেন। নগরবাসীর পাশে দাঁড়াতে তারা সর্বাত্মক চেষ্টা করছেন।

ভারপ্রাপ্ত মেয়র তৌফিক বকস বলেন, এখন পর্যন্ত বন্যাকবলিত মানুষদের জন্য নগরীতে ১৭টি আশ্রয়কেন্দ্র খোলা হয়েছে। এসব কেন্দ্রে শুকনো খাবারের পাশাপাশি রান্না করা খাবার পরিবেশন করা হচ্ছে। সিসিকের কর্মকর্তা-কর্মচারী ও কাউন্সিলররা সার্বক্ষনিকভাবে দুর্গত মানুষের পাশে রয়েছেন।

লন্ডনে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের পাশাপাশি সিলেটে ছাত্রদল নেতা রাজু হত্যা মামলার পলাতক আসামি আব্দুর রকিব চৌধুরীর সঙ্গে মেয়র আরিফের ছবি ফেসবুকে এসেছে। এ নিয়ে বিএনপি-ছাত্রদলের অভ্যন্তরে সমালোচনার মধ্যে নগরবাসীর ভোগান্তিতে মেয়র আরিফের অনুপস্থিতি অনেককে ক্ষুব্ধ করেছেন।

মহানগর আওয়ামী লীগ নেতা প্রিন্স সদরুজ্জামান চৌধুরী ফেসবুকে লিখেছেন, ‘মাননীয় মেয়র সিলেট নগরীর মানুষ বন্যার পানিতে ভাসছেন আর আপনি টিকেটের নেশায় লন্ডনে ষড়যন্ত্রের হাসি হাসছেন!’

কয়েকদিন আগে লন্ডনে স্থানীয় একটি টেলিভিশনের অফিসের লিফটে দেড় ঘণ্টা আটকা পড়েছিলেন মেয়র আরিফ। এই প্রসঙ্গে হযরত বিনয় ভদ্র নামে আরেকজন ফেসবুকে ট্রল করে লিখেছেন, ‘সিলেট মহানগর যখন ডুবছিল তখন মেয়র আরিফ লন্ডনে লিফটে দেড় ঘণ্টা আটকা ছিলেন।’

ছড়াকার অজিত রায় ভজন ছড়া লিখেছেন, ‘আপনি মেয়র কোথায় এখন/বিলাতে?/হিসেব তো আর পারছি না ভাই/মিলাতে।’ এই ছড়ার শেষাংশে লিখেছেন, ‘দুখের দিনে আপনি আছেন/বিদেশে?/ খুলুন টিভি, হচ্ছে দেখুন/কী দেশে?’

এভাবে অনেকে ক্ষোভ ও হতাশা প্রকাশ করলেও সিসিকের জনসংযোগ কর্মকর্তা আব্দুল আলিম শাহ মেয়রের দেশে ফেরার বিষয়ে কোন সদুত্তর দিতে পারেননি। তবে মেয়রের ঘনিষ্টজন হিসেবে পরিচিত নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন জানান, বৃহস্পতিবার সকালের ফ্লাইটে মেয়র আরিফ লন্ডন থেকে সিলেটে ফিরছেন।

সূত্র: সমকাল
এম ইউ/১৮ মে ২০২২

Back to top button