ক্রিকেট

‘সেঞ্চুরি করলে ব্র্যাডম্যান, খারাপ খেললে সমর্থকরা গর্তে ঢুকে যায়’

চট্টগ্রাম, ১৮ মে – ১৮ টেস্ট ইনিংস পর সেঞ্চুরি পাওয়া মুশফিকুর রহিম সমর্থকদের একহাত নিলেন। ভালো সময়ের পাশাপাশি খারাপ সময়ে পাশে থেকে সমর্থন জোগাতে আহ্বান করলেন। ভালো সংস্কৃতি তৈরির অনুরোধ করলেন, যেন তরুণ ও প্রতিশ্রুতিশীল ক্রিকেটাররা দেশের হয়ে ভালো খেলতে সমর্থন পায়।

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ক্যারিয়ারের অষ্টম সেঞ্চুরি পেয়েছেন মুশফিক। ২৮২ বলে ১০৫ রান করেছেন। ২২ গজে কাটিয়েছেন ৪৪৯ মিনিট। এ ইনিংস খেলার পথে ৬৮ রানের সময় টেস্ট ক্রিকেটে ৫ হাজার রানের মাইলফলকও ছুঁয়েছেন। দিনটি তার জন্য অনেক স্মরণীয় তা বলার অপেক্ষা রাখে না। কিন্তু সমর্থকদের ওপর নিজের ক্ষোভ ঝারলেন।

মুশফিক বলেছেন, ‘এটা (বিতর্ক তৈরি করা) স্বাভাবিকভাবেই কোনো খেলোয়াড়ের জন্য কাম্য না। কারণ একমাত্র বাংলাদেশেই দেখেছি একটা সেঞ্চুরি করলে ব্র্যাডম্যানের চেয়ে বড় কিছু হয়ে যায়। আবার দুই-তিনটা ম্যাচ রান না করলে গর্তের মধ্যে ঢুকে যায় (সমর্থকরা)। এটা একমাত্র বাংলাদেশেই হয়। জানি না এটা কারা করে, এটা তাদের সমস্যা।’

তিনি আরো বলেন, ‘আমার মনে হয় তারা যদি আরো ভালোভাবে বাংলাদেশ দলকে সমর্থন জোগান, তাহলে খেলোয়াড়দের জন্য ও বাংলাদেশ ক্রিকেটের জন্য আরো ভালো। কারণ আমরাতো সিনিয়র ক্রিকেটার, আমরা হয়তো বেশিদিন খেলবও না। আমি মনে করি জুনিয়র ক্রিকেটারদের যদি সমর্থনটা দেওয়া যায় তাহলে তারা আরো অনুপ্রাণিত হবে। কারণ অন দ্য ফিল্ড আমাদের এত কিছু করতে হয়, এখন অফ দ্য ফিল্ডে যদি এগুলো করতে হয়, তবে মাঠের কাজগুলো কঠিন হয়ে যায়।’

কিছুদিন আগে বিসিবি সভাপতি বলেছিলেন, সিনিয়র ক্রিকেটাররা যেন সব সংস্করণে না খেলে নির্দিষ্ট কোনো সংস্করণে মনোযোগ দেয়। যদি নিজে থেকে সরে না দাঁড়ায়, সব সংস্করণেই খেলতে চায়, তাহলে বোর্ড সিদ্ধান্ত নিবে।

এমন ঘোষণার পর আলোচনা-সমালোচনা হচ্ছে তীব্র। ধারণা করা হচ্ছে, মুশফিক নিজে সরতে না চাইলে তাকে টি-টোয়েন্টি থেকে সরিয়ে দেওয়া হতে পারে। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে মুশফিক অষ্টম সেঞ্চুরি করলে তার স্ত্রী সোচ্চার কণ্ঠে খোঁচা দিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট দেন। ইনস্টাগ্রাম পোস্টে জান্নাতুল মন্ডি লিখেছেন, ‘আমরা হাসিমুখেই বিদায় নিবো ইনশাআল্লাহ! তবে আপনাদের রিপ্লেসমেন্ট আছে তো? সেদিকেও একটু নজর দিলে বাংলাদেশ ক্রিকেটের উন্নয়ন হতো।’

বুধবার চতুর্থ দিনের খেলা শেষে এই পোস্ট নিয়ে জানতে চাইলে মুশফিক বলেছেন, ‘প্রথমত, আমিতো দেখিনি কী লিখেছে, এখন দেখলে বোঝা যাবে কী বলা যাবে বা কী লিখেছে।’

সূত্র : রাইজিংবিডি
এম এস, ১৮ মে

Back to top button