এশিয়া

চীনে ১৩২ যাত্রী নিয়ে বিমান দুর্ঘটনা ছিলো ইচ্ছাকৃত

বেইজিং, ১৮ মে – চলতি বছরের মার্চে বোয়িং ৭৩৭-৮০০ সিরিজের উড়োজাহাজ চীনের কুনমিং থেকে গুয়াংঝুতে যাচ্ছিলো। পথে, গুয়াংজি পর্বতে আছড়ে পরে উড়োজাহাজটি ধ্বংস হয়। সে সময় উড়োজাহাজটিতে থাকা ১৩২ জন যাত্রী ও ক্রুর প্রত্যেকেই নিহত হন।

বিধ্বস্ত উড়োজাহাজটির উদ্ধারকৃত ব্ল্যাক বক্স থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুসারে, গত মার্চের ২১ তারিখে দুর্ঘটনায় পড়া ওই উড়োজাহাজের ককপিট থেকে কেউ একজন ইচ্ছাকৃতভাবেই ক্র্যাশ করতে বাধ্য করেছে। মঙ্গলবার মার্কিন সংবাদমাধ্যম ওয়ালস্ট্রিট জার্নালের এক প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী জানা যায়, প্রাথমিক তদন্তে উড়োজাহাজটিতে টেকনিক্যাল কোনো ত্রুটি পাওয়া যায়নি। প্রাথমিক তদন্তে বিমানটির ক্রুদের গতিবিধির ওপর দৃষ্টি নিবদ্ধ করা হচ্ছে।

এই বিষয়ে বিমানটির নির্মাতা প্রতিষ্ঠান বোয়িং কর্পোরেশন মন্তব্য করতে অস্বীকার করেছে। চীনা কর্তৃপক্ষও এখনো কোনো মন্তব্য করেনি।

বিগত ২৮ বছরের মধ্যে চীনের মূল ভূখণ্ডে এই বিমান দুর্ঘটনাই সবচেয়ে ভয়াবহ দুর্ঘটনা। দুর্ঘটনার পর চীনা বিমান সংস্থাটি তাদের বহরে থাকা বোয়িংয়ের তৈরি উড়োজাহাজগুলোর ফ্লাইট অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ করেছিলো।

সূত্র : বাংলাদেশ জার্নাল
এম এস, ১৮ মে

Back to top button