শিক্ষা

নিউ মার্কেটে সংঘর্ষের ঘটনায় সংশ্লিষ্ট আরও ৩ শিক্ষার্থী গ্রেপ্তার

ঢাকা, ০৫ মে – রাজধানীর নিউমার্কেট এলাকায় ব্যবসায়ী-কর্মচারী আর ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীদের সংঘর্ষের ঘটনায় আরও তিন শিক্ষার্থীকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)।

বৃহস্পতিবার ভোরে শরীয়তপুর ও কক্সবাজারে অভিযান চালিয়ে তাদেরকে গ্রেপ্তার করা হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার সহকারী পরিচালক অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আনম ইমরান খান।

তিনি জানান, সাম্প্রতিক সময়ে নিউমার্কেট এলাকায় সংঘর্ষে দুইজন নিহত হওয়ার ঘটনায় হত্যাকাণ্ডে জড়িত একজন এবং সংঘর্ষের সূত্রপাতকারী দুইজনসহ মোট তিনজনকে শরীয়তপুর ও কক্সবাজার থেকে গ্রেপ্তার করেছে র‍্যাব। গ্রেপ্তারকৃতদের মধ্যে ঢাকা কলেজের দুই শিক্ষার্থীর নাম জানা গেছে। তারা হলেন সিয়াম ও বাপ্পী। তবে তাদের বিস্তারিত পরিচয় জানা যায়নি। সকাল সাড়ে ১১টায় রাজধানীর কারওয়ানবাজারে মিডিয়া সেন্টারে তাদের সম্পর্কে বিস্তারিত জানাতে সংবাদ সম্মেলন করবে র‌্যাব।

এ নিয়ে সংঘর্ষের ঘটনায় মোট আটজনকে গ্রেপ্তার করলো আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। এর আগে ডিবি পুলিশের হাতে গ্রেপ্তারের পর কারাগারে আছেন ঢাকা কলেজের পাঁচ শিক্ষার্থী।

উল্লেখ্য, ১৮ এপ্রিল দিবাগত রাত ১২টার দিকে ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীদের সঙ্গে নিউমার্কেটের ব্যবসায়ী ও দোকান কর্মীদের সংঘর্ষ শুরু হয়। প্রায় আড়াই ঘণ্টা চলে এ সংঘর্ষ। এরপর রাতে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এলেও মঙ্গলবার সকাল ১০টার পর থেকে ফের দফায় দফায় শুরু হয় সংঘর্ষ। যা চলে সন্ধ্যা পর্যন্ত।

এতে উভয়পক্ষের অর্ধশতাধিক আহত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। তাদের মধ্যে কয়েকজনের অবস্থা গুরুতর। আর সংঘর্ষের মধ্যে পড়ে গুরুতর আহত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান নাহিদ হাসান নামে এক ডেলিভারিম্যান।

জানা যায়, ঘটনার দিন মঙ্গলবার কামরাঙ্গীরচরে বাসা থেকে বের হয়ে কর্মস্থলে যাচ্ছিলেন নাহিদ। এ সময় সংঘর্ষের মধ্যে পড়ে গুরুতর আহত হন তিনি। পরে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় নিহত নাহিদের বাবা মো. নাদিম হোসেন বাদী হয়ে নিউমার্কেট থানায় একটি হত্যা মামলা করেছেন। মামলায় তিনি অজ্ঞাত আসামি উল্লেখ করেছেন।

অন্যদিকে, সংঘর্ষের ঘটনায় আহত মো. মুরসালিন (২৪) নামে এক দোকান কর্মচারী মারা গেছেন। বৃহস্পতিবার ভোর ৪টা ৪০ মিনিটে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যাকেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি।

সূত্র : বাংলাদেশ জার্নাল
এম এস, ০৫ মে

Back to top button