মধ্যপ্রাচ্য

বিনা অভিযোগে ইসরাইলের কারাগারে বন্দি ৬০০ ফিলিস্তিনি

জেরুজালেম, ০৪ মে – কোনো অভিযোগ বা বিচার ছাড়াই কারাগারে ৬০০ বেশি ফিলিস্তিনিকে আটক রেখেছে ইসরাইল। ২০১৬ সালের পর এটি সর্বোচ্চ আটকের ঘটনা।

সোমবার ইসরাইলের একটি মানবাধিকার সংস্থা এই তথ্য জানিয়েছে। খবর আল–জাজিরার।

মানবাধিকার সংস্থা হামোকদ নিয়মিত কারা কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে বন্দিদের পরিসংখ্যান সংগ্রহ করে। সংস্থাটি জানিয়েছে, মে পর্যন্ত ৬০৪ জন প্রশাসনিক বন্দি কারাগারে আছেন। যাদের প্রায় সবাই ফিলিস্তিনি। তবে ইহুদিদের বিরুদ্ধে এই ধরনের আটকের ঘটনা তেমন একটা ঘটে না।

তথাকথিত প্রশাসনিক বন্দিদের গোপন প্রমাণের ভিত্তিতে গ্রেফতার করা হয়। তাদের বিরুদ্ধে সুনির্দিষ্ট কোনো অভিযোগও আনা হয় না। এমনকি আদালতে আত্মপক্ষ সমর্থন করারও অনুমতি নেই এসব বন্দিদের। সাধারণত ছয় মাসের জন্য তাদের কারাগারে রাখা হয়। কিন্তু বছরের পর বছর ধরে বিনা বিচারে কারাগারেই থাকতে হয় এসব ফিলিস্তিনিদের।

ইসরাইলের দাবি, প্রমাণ সংগ্রহ চলমান থাকলেও আইন অনুযায়ী সন্দেহভাজনদের আটক রাখা যায়। তবে, সমালোচক ও মানবাধিকার গোষ্ঠীগুলো বলছে, এই পদ্ধতির ব্যাপক অপব্যবহার করা হয়। এছাড়া সঠিক আইনি প্রক্রিয়াও অনুসরণ করা হয় না।

হামোকদের তথ্যানুযায়ী, ইসরাইলের সামরিক আদালতে দোষী সাব্যস্ত হয়ে বর্তমানে দুই হাজার ৪৪১ ফিলিস্তিনি সাজা ভোগ করছেন। অপরদিকে এক হাজার ৪৭৮ জনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক রাখা হয়েছে। তাদের মধ্যে কারও কারও বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়েছে, কেউবা বিচারের অপেক্ষায় আছেন। আবার কারো বিচার চলমান।

ইসরাইলি সামরিক বাহিনীর কাছে সর্বশেষ পরিসংখ্যান সম্পর্কে জানতে চাওয়া হয়। কিন্তু, তাৎক্ষণিকভাবে তারা কোনো মন্তব্য করতে রাজি হয়নি।

সূত্র: যুগান্তর
এম ইউ/০৪ মে ২০২২

Back to top button