দক্ষিণ এশিয়া

মসজিদে নববীতে হট্টগোল, গ্রেপ্তার হতে পারেন ইমরান

ইসলামাবাদ, ০১ মে – মদিনার পবিত্র মসজিদে নববীতে পাকিস্তানের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী ও মন্ত্রীদের উদ্দেশ্য করে ‘চোর চোর’ স্লোগান ও হট্টগোলের ঘটনায় ইমরান খানসহ ১৫০ জনের নামে মামলা দায়ের করা হয়েছে পাকিস্তানে। তাদের বিরুদ্ধে পাকিস্তানি ওমরাহপালনকারীদের হয়রানি ও ধর্মীয় কাজে বাধা দেওয়ার অভিযোগ আনা হয়েছে। এ ঘটনায় এরই মধ্যে ইমরান-ঘনিষ্ঠ সাবেক এক মন্ত্রীর ভাতিজাকে গ্রেফতার করেছে পাকিস্তানের নিরাপত্তা বাহিনী।

পাকিস্তানি সংবাদমাধ্যম দ্য নিউজ জানিয়েছে, রোববার (১ এপ্রিল) ফয়সালাবাদের মদিনা টাউন থানায় সন্দেহভাজনদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন মোহাম্মদ নাঈম নামে এক ব্যক্তি।

মামলার আসামিদের মধ্যে রয়েছেন পাকিস্তানের ক্ষমতাচ্যুত প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান, সাবেক তথ্যমন্ত্রী ফাওয়াদ চৌধুরী, প্রধানমন্ত্রীর সাবেক বিশেষ সহকারী ড. শাহবাজ গিল, জাতীয় পরিষদের সাবেক ডেপুটি স্পিকার কাসিম খান সুরি, জাতীয় পরিষদের সদস্য শেখ রশিদ শফিক, ব্রিটিশ-পাকিস্তানি ব্যবসায়ী অনিল মুসারাতসহ আরও অনেকে।

মামলার অভিযোগে বলা হয়েছে, মসজিদে নববীতে পাকিস্তানি ওমরাহপালনকারীদের কাজে বাধা দিতে পাকিস্তান থেকে ১৫০ জন ও লন্ডন থেকে আরও কয়েকজনের একটি দলকে সৌদি আরবে পাঠানো হয়েছিল। অভিযোগকারীর দাবি, পূর্বপরিকল্পিত ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে এ ঘটনা ঘটানো হয়েছে।

সাবেক মন্ত্রীর ভাইপো গ্রেফতার
মামলার পরপরই ইমরান খানের ক্ষমতাচ্যুত সরকারের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী শেখ রশিদ আহমদের ভাইপো শেখ রশিদ শফিককে গ্রেফতার করা হয়েছে। সৌদি আরব থেকে ফিরে ইসলামাবাদ বিমানবন্দরে পা রাখার সঙ্গে সঙ্গে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

শেখ রশিদ তার ভাইপোর গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেছেন, উমরাহ পালন শেষে ফেরার পরপরই শফিককে গ্রেফতার করা হয়েছে। মামলার পর বাড়িঘরে অভিযান চালানো হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন তিনি।

সূত্র জানিয়েছে, রশিদ শফিককে একটি কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থার হাতে হস্তান্তর করা হয়েছে। মসজিদে নববীর ঘটনার পর সেই বিশৃঙ্খলাকে সমর্থন জানিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি ভিডিও পোস্ট করেছিলেন শফিক। শাহবাজ শরিফরা মক্কায় গেলেও একই ধরনের ঘটনা ঘটবে বলে ইঙ্গিত দিয়েছিলেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী হিসেবে প্রথম বিদেশ সফরে সম্প্রতি সৌদি আরবে গিয়েছিলেন মুসলিম লীগ নেতা শাহবাজ শরিফ। সঙ্গে ছিলেন একঝাঁক মন্ত্রী, দলীয় নেতা ও পরিবারের সদস্য। তিনদিনের সফরে গত বৃহস্পতিবার (২৮ এপ্রিল) বিকেলে সৌদিতে পা রাখেন তারা। পরে নামাজ পড়তে যান মসজিদে নববীতে। কিন্তু সেখানে অনভিপ্রেত ঘটনার সাক্ষী হতে হয় শাহবাজদের। পাকিস্তানের নতুন প্রধানমন্ত্রী-মন্ত্রীদের দেখেই তুলকালাম শুরু করেন একদল পাকিস্তানি ওমরাহপালনকারী।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল ভিডিওতে দেখা যায়, মহানবী (স)-এর মসজিদে শাহবাজ ও তার সঙ্গীদের দেখে ‘চোর চোর’ স্লোগান শুরু করেন একদল পাকিস্তানি। আরেক ভিডিওতে মসজিদের ভেতর পাকিস্তানের নতুন তথ্যমন্ত্রী মরিয়ম আওরঙ্গজেব এবং মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ মন্ত্রী শাহজাইন বুগতির উদ্দেশে কিছু লোককে গালিগালাজ করতে দেখা যায়। অন্য একটি ভিডিওতে এক ওমরাহপালনকারীকে বুগতির চুল পেছন থেকে টেনে ধরতে দেখা যায়।

মসজিদে নববীর মতো পবিত্র একটি জায়গায় এমন ন্যক্কারজনক ঘটনার তীব্র সমালোচনা করেছেন পাকিস্তানের বিভিন্ন রাজনীতিবিদ ও ধর্মীয় নেতা।

ক্ষমতাসীনদের অভিযোগ, এর জন্য ইমরান খানের দল পিটিআই দায়ী। তবে ইমরান খান বলেছেন, এটি বর্তমান সরকারেরই ‘কর্মফল’।

সূত্র: জাগো নিউজ
এম ইউ/০১ মে ২০২২

Back to top button