বলিউড

ইরানি নৃত্যশিল্পীর প্রেমে পড়ে অমিতাভ রেখাকে চড় মেরেছিলেন

মুম্বাই, ০১ মে – অমিতাভ বচ্চন ও রেখা আগারওয়াল। রুপালি পর্দার প্রেম ছাড়িয়ে তাদের আবেদন চিরকালের। ‘দো আনজানে’ (১৯৭৬) দিয়ে সিনেমার পর্দায় রসায়ন শুরু, আর ‘সিলসিলা’ (১৯৮২) দিয়ে শেষ। অভিনয়ের চেয়ে অনেকাংশেই চর্চিত এ জুটির গোপন প্রেম।

তবে ‘সিলসিলা’র পরে আর কোনো ছবিতে একসঙ্গে দেখা যায়নি এ জুটিকে। কী এমন ঘটেছিল যে, এই জুটির বিচ্ছেদ ঘটে গেলো এক ঝটকায়? অমিতাভ অবশ্য সবসময় এমন প্রশ্নে নীরব থেকেছেন। মুখ খুলেছেন রেখা।

ইয়াসির উসমানের লেখা ‘রেখা: দ্য আনটোল্ড স্টোরি’ গ্রন্থে তিনি জানিয়েছেন, হঠাৎ একদিন অমিতাভের কাছ থেকে বার্তা আসে, আর নয়। আর কোনো ছবিতেই তিনি ও রেখা কাজ করবেন না।

কেন এমন সিদ্ধান্ত? প্রশ্ন অবশ্যই করেছিলেন রেখা। কিন্তু অমিতাভের উত্তর ছিল, ‘না’। এ বিষয়ে আর কোনো শব্দ তিনি উচ্চারণ করবেন না। কিন্তু অমিতাভ-রেখার প্রেমের মাঝেই ঘটেছিল এক ভয়ঙ্কর ঘটনা। রেখা নিজেই তা প্রকাশ করেছেন।

‘লাওয়ারিশ’ ছবির শুটিংয়ের সময় অমিতাভ বচ্চন একজন ইরানি নৃত্যশিল্পীর প্রেমে পড়েন। ততদিনে তিনি জয়াকে বিয়ে করেছেন এবং রেখার সঙ্গেও তার গোপন প্রেম চলছে। তার মধ্যেই আবার প্রেম?

এ খবর তখন বলিউডের সবার মুখে মুখে। রেখার কানেও তা পৌঁছায়। রেখা রেগে গিয়ে সরাসরি অমিতাভের কাছে এ প্রেম নিয়ে নানান প্রশ্ন করেন। বেশ কিছুক্ষণ উভয়ের মধ্যে ঝগড়া চলার পরে থাকতে না পেরে বেশ রেগে গিয়েই অমিতাভ রেখাকে সপাটে চড় মারেন। একবার নয়, বেশ কয়েকবার।

স্তব্ধ হয়ে যান রেখা। সিদ্ধান্ত নেন শুধু ওই ছবিতেই নয়। অমিতাভের সঙ্গে আর কোনো দিনই তিনি ছবি করবেন না। পরবর্তী সময়ে অবশ্য যশ চোপড়ার অনুরোধেই রেখা ‘সিলসিলা’ ছবিতে কাজ করতে রাজি হন। কিন্তু ওই চড়ের কথা রেখা কোনো দিনও ভোলেননি।

এম এস, ০১ মে

Back to top button