ইউরোপ

রাশিয়ার গ্যাস বন্ধের পদক্ষেপ ‘ব্ল্যাকমেইলের হাতিয়ার’: ইইউ

আমস্টারডাম, ২৮ এপ্রিল – একদিকে চলমান ইউক্রেন-রাশিয়া সামরিক যুদ্ধ, অন্যদিকে পশ্চিমা বিশ্বের সঙ্গে রাশিয়ার অর্থনৈতিক যুদ্ধ। বুধবার (২৭ এপ্রিল) এই লড়াইয়ের সর্বশেষ পদক্ষেপ হিসেবে পোল্যান্ড ও বুলগেরিয়ায় প্রাকৃতিক গ্যাস সরবরাহ বন্ধ করে দিয়েছে রাশিয়ার গ্যাজপ্রম।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির এক প্রতিবেদনে জানা যায়, পোল্যান্ড ও বুলগেরিয়ায় রাশিয়ার গ্যাস বন্ধের পদক্ষেপকে ব্ল্যাকমেইল বলে দাবি করেছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)।

ইইউ’র ভাষ্যমতে, পোল্যান্ড ও বুলগেরিয়াতে গ্যাস রপ্তানি বন্ধ করার বিষয়ে রাশিয়ার নেয়া সিদ্ধান্ত ‘ব্ল্যাকমেইলের হাতিয়ার’।

ইউরোপীয় কমিশনের প্রেসিডেন্ট উরসুলা ভন ডার লেইন জানিয়েছেন, রাশিয়ার গ্যাস বন্ধের এই পদক্ষেপ সরবরাহকারী হিসেবে তাদের অবিশ্বস্ততাকেই সামনে এনেছে।

বেলজিয়ামের রাজধানী ব্রাসেলসে উরসুলা ভন ডার লেইন বলেন, গ্যাস সরবরাহ বন্ধের বিষয়ে গ্যাজপ্রমের এই পদক্ষেপ ‘অযৌক্তিক এবং অগ্রহণযোগ্য’। তবে ইউরোপীয় ইউনিয়ন ‘এই দৃশ্যের জন্য প্রস্তুত’ ছিল বলেও জোর দিয়ে বলেন তিনি।

তিনি বলেন, আন্তর্জাতিক মিত্র ও অংশীদারদের সঙ্গে নিয়ে এই বিষয়ে একটি ‘তাৎক্ষণিক, ঐক্যবদ্ধ এবং সমন্বিত’ পদক্ষেপ বাস্তবায়ন করবে ইইউ।

প্রকৃতপক্ষে ইউরোপ এক-তৃতীয়াংশেরও বেশি গ্যাস চাহিদা মেটানোর জন্য রাশিয়ার ওপর নির্ভরশীল। এছাড়া রাশিয়ার গ্যাস পাইপলাইনের ওপর একচেটিয়া কর্তৃত্ব রুশ রাষ্ট্রীয় জ্বালানি জায়ান্ট গ্যাজপ্রমের।

এদিকে ক্রেমলিন থেকে দাবি করা হয়েছে, পশ্চিমা দেশগুলোর ‘অবন্ধুসুলভ পদক্ষেপের’ কারণেই রাশিয়া গ্যাস বন্ধের এই সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হয়েছে।

রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন জানান, জ্বালানি সরবরাহের জন্য রাশিয়ার ওপর নির্ভরশীল ইউরোপীয় দেশগুলোকে রুশ মুদ্রা রুবলে প্রাকৃতিক গ্যাসের জন্য অর্থ পরিশোধ করতে হবে। তবে পুতিনের দাবি মানতে একেবারেই রাজি না ইইউ।

এদিকে মার্কিন সংবাদমাধ্যম ব্লুমবার্গের একটি প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, ১০টি ইউরোপীয় জ্বালানি সংস্থা রুশ গ্যাসের জন্য গ্যাজপ্রমকে রুবলে অর্থ পরিশোধ করতে প্রস্তুতি নিচ্ছে এবং ইতোমধ্যেই চারটি সংস্থা তা করেছে।

ইউরোপীয় কমিশনের প্রেসিডেন্ট উরসুলা ভন ডার লেইন এই ধরনের পদক্ষেপের সমালোচনা করে বলেন, এই ধরনের পদক্ষেপ ‘উচ্চ ঝুঁকি’ সৃষ্টি করবে এবং রাশিয়ার বিরুদ্ধে আমাদের ‘আরোপিত নিষেধাজ্ঞার লঙ্ঘন’ করবে।

সূত্র : বাংলাদেশ জার্নাল
এম এস, ২৮ এপ্রিল

Back to top button