ফুটবল

রিয়ালকে হারিয়ে ফাইনালের পথে এক ধাপ এগিয়ে ম্যানসিটি

চ্যাম্পিয়ন্স লিগের সেমিফাইনালের প্রথম লেগে রিয়াল মাদ্রিদকে হারিয়েছে ম্যানচেস্টার সিটি।

মঙ্গলবার দিবাগত রাতে পেপ গার্দিওলার শিষ্যদের জয় ৪-৩ গোলে। দু’দলের ফিরতি লেগের ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে আগামী সপ্তাহে অর্থাৎ ৪ মে।

ইতিহাদ স্টেডিয়ামে ম্যাচের বয়স যখন মোটে ৯০ সেকেন্ড, ঠিক তখনি দলকে এগিয়ে দেন কেভিন ডি ব্রুইন। শুরুতেই আক্রমণে রিয়াদ মাহরেজ ডান প্রান্তে পেয়ে যান বল; গোটা দুই চ্যালেঞ্জ এড়িয়ে ক্রস বাড়ান বক্সে, সেটাই রিয়াল বিপদসীমায় ‘লেট রান’ নেয়া কেভিন ডি ব্রুইনা পেয়ে যান ফাঁকায়, নিচু হেডারে বলটাকে আছড়ে ফেলেন জালে। দ্বিতীয় মিনিটেই নিখুঁত শুরু পেয়ে যায় সিটি।

এরপর ম্যাচের ১১ মিনিটের মাথায় ব্যবধান দ্বিগুণ করেন ম্যানসিটির ব্রাজিলিয়ান স্ট্রাইকার গ্যাব্রিয়েল জেসুস। রিয়ালের অর্ধে ডান প্রান্ত দিয়ে বল নিয়ে ঢোকেন তরুণ ইংলিশ তারকা ফিল ফোডেন। কর্নার লাইনের কাছাকাছি গিয়ে তিনি পাস দেন সতীর্থ ব্রুইনকে। ব্রুইন বল উড়িয়ে মারেন ডি বক্সের ভেতর থাকা জেসুসকে। তার সঙ্গে ছিলেন রিয়াল মাদ্রিদের ডিফেন্ডার ডেভিড আলাবাও। তবে বল রিসিভ করে আলাবা ও গোলরক্ষক থিবো কর্তোয়াকে বোকা বানিয়ে জালে বল জড়ান জেসুস।

এছাড়া ম্যাচের ২৬ এবং ২৯ মিনিটে মাহরেজ আর ফিল ফোডেন দুটো মোক্ষম সুযোগ কাজে লাগাতে পারেনি পারলে হয়তো হাফ টাইমের আগে ব্যবধান আরও বেড়ে যেত। তবে রিয়ালের সৌভাগ্য, সুযোগ দুটো বেরিয়ে গেছে কানের পাশ দিয়ে।

দুটো মিসের পরই ক্যামেরা সরে গিয়েছিলো ডাগ আউটে। তীব্র আক্রোশে তখন ফেটে পড়ছিলেন কোচ গার্দিওলা। কেন ফেটে পড়ছিলেন সেটা বোঝা গেল একটু পরই। ৩৩ মিনিটে বাম প্রান্ত থেকে ফেরলান্দ মেন্দির ক্রসে দারুণ এক গোল করে বসেন এবারের মৌসুমে দুর্দান্ত ফর্মে থাকা ফরাসি স্ট্রাইকার কারিম বেনজেমা। সেই গোল স্কোরলাইন করল ২-১, আর রিয়ালকে দিলো ম্যাচে ফেরার সঞ্জীবনী সুধা। এ স্কোর নিয়েই বিরতিতে যায় দুটি দল।

বিরতি থেকে ফিরেই দারুণ একটা সুযোগ এসেছিলো সিটির সামনে। গোলের খোঁজে হন্যে হয়ে আক্রমণে ওঠা রিয়ালকে প্রতি আক্রমণে প্রায় বিপদে ফেলেই দিচ্ছিলেন রিয়াদ মাহরেজ৷ তবে তার শটটা গিয়ে কাঁপায় বাম প্রান্তের পোস্টটা, ফিরতি সুযোগে ফোডেনের শট গোললাইন থেকে ফেরান কারভাহাল।

খেলার ৫৩ মিনিটে ফার্নানদিনহোর ক্রস থেকে বল পেয়ে হেডের সাহায্যে রিয়ালের জাল কাঁপান ফিল ফোডেন। এতে ৩-১ ব্যবধানে এগিয়ে যায় ম্যানসিটি। তবে তার দুই মিনিট পরে আবারও ব্যবধান কমায় (৩-২) রিয়াল মাদ্রিদ। ৫৫ তম মিনিটে রক্ষণ থেকে আসা পাস থেকে দারুণ এক ডামিতে মার্কার ফের্নান্দিনিওকে ছিটকে দেন ভিনিসিয়াস জুনিয়র, তার গতির কাছে হার মানে সিটির ‘হাইলাইন’ মানা রক্ষণ; সিটি বিপদসীমায় উঠে এসে ঠাণ্ডা মাথায় নিখুঁত ফিনিশিংয়ের মাধ্যমে জালে বল জড়ান ব্রাজিলিয়ান এই স্ট্রাইকার।

এর দুই মিনিট পর সমতায় ফেরার সুযোগ পেলেও সেটা নষ্ট করে রিয়াল মাদ্রিদ। ফলে সমতায়ও ফেরা হয়না স্প্যানিশ জায়ান্টদের। এরপর দুই দলই গোলের জন্য হন্য হয়ে চেষ্টা করতে থাকেন।

তবে সফলতার দেখা পায় ম্যানসিটি। ম্যাচের ৭৫ তম মিনিটে বক্সের বাইরে ওলেক্সান্দ্র জিনচেঙ্কো ফাউলের শিকার হয়; সেসময় রিয়াল রক্ষণ তো বটেই, সিটির খেলোয়াড়রাও তখন ভাবছিলেন ফ্রি কিকের কথা। তবে সেই সুযোগটাই নেন বার্নার্ডো সিলভা। বক্সের বাইরে থেকে বল নিয়ে ঢুকে করে বসেন দারুণ একটা গোল, থিবো কোর্তোয়াসহ রিয়ালের রক্ষণকে তখন মনে হচ্ছিল রীতিমতো ‘অস্তিত্বহীন’।

তবে তখনও হাল ছাড়েনি রিয়াল। চালিয়ে যাচ্ছিলো ব্যবধান কমানোর চেষ্টা। দলটি তার ফলও পায় ৮২ মিনিটে। বক্সে ভেসে আসা ক্রসে ভুলে হাত ছুঁইয়ে বসেন রুবেন ডিয়াজ। পেনাল্টি থেকে পানেনকা শটে বল জালে জড়ান বেনজেমা। যার ফলে শেষ পর্যন্ত ৪-৩ গোলের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে ম্যানচেস্টার সিটি।

সূত্র : বাংলাদেশ জার্নাল
এম এস, ২৭ এপ্রিল

Back to top button