ইউরোপ

চেরনিহিভে ৭০০ জনেরও বেশি মানুষ নিহত, দাবি ইউক্রেনের

কিয়েভ, ২৩ এপ্রিল – ইউক্রেনের চেরনিহিভ নগর কাউন্সিলের প্রধান ওলেক্সান্ডার লোমাকো বলেছেন, উত্তরাঞ্চলীয় শহর চেরনিহিভে ৭০০ জনেরও বেশি বেসামরিক মানুষ নিহত হয়েছেন।

শনিবার বিবিসির খবরে বলা হয়, রুশ সেনারা শহরটির অবরোধ তুলে নেয়ার তিন সপ্তাহ পর মূল কবরস্থানে এখনও নতুন কবর খোঁড়া হচ্ছে। দুটি জমি কবরে পূর্ণ এবং আমরা যখন সেখানে ছিলাম তখন গোরখোদকরা তৃতীয়টি খনন করছিলেন।

প্রায় এক-চতুর্থাংশের পাশে ফুল, প্রদীপ, ফল এবং অন্যান্য জিনিসপত্র রাখা ছিল, যা থেকে বোঝা যায় যে, মৃতের স্বজনরা কবর দেখতে এসেছিলেন। কিন্তু বাকিগুলোতে কাঠের লাঠির মাথায় নাম; সেইসাথে জন্ম ও মৃত্যুর তারিখ উল্লেখ করে ফলক দিয়ে চিহ্নিত ছিল।

আমরা এক নারীর দেখা পেলাম, যিনি তার বোন ও স্বামীর কবর খুঁজছিলেন। এরা উভয়েই গোলাগুলিতে নিহত হন। ওই নারী বলেন, ‘তারা শান্তিপূর্ণ মানুষ ছিলেন, তাদের পেশা ছিল নাচ করা।’ তিনি জানেন না যে, তাদের মৃতদেহ কোথায় দাফন করা হয়েছে।

গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে সামরিক আগ্রাসন শুরু করে রাশিয়া। দেশটির রাজধানী কিয়েভসহ বিভিন্ন শহরে গোলা ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলা শুরু করে রুশ বাহিনী।

যুদ্ধে দুই পক্ষেরই ব্যাপক প্রাণহানির খবর পাওয়া যাচ্ছে। জাতিসংঘ বলছে, যুদ্ধের কারণে ইতোমধ্যে ইউক্রেন ছেড়ে অন্য দেশে আশ্রয় নিয়েছেন ৫০ লাখেরও বেশি মানুষ।

সূত্র জানায়, রাশিয়ার সীমান্তবর্তী ইউক্রেনের শহরগুলো ঘিরে রেখেছে রুশ সামরিক বাহিনী; হামলা চলছে ইউক্রেনের দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর খারকিভেও।

রাশিয়ার গোলা ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় খারকিভ শহরেও ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি ও প্রাণহানির খবর পাওয়া যাচ্ছে।

সূত্র: বাংলাদেশ জার্নাল
এম ইউ/২৩ এপ্রিল ২০২২

Back to top button