রূপচর্চা

রমজানে ত্বক ও চুলের যত্ন

রমজানে মানুষের দৈনন্দিন জীবনের রুটিনে পরিবর্তন আসে। খাওয়া-দাওয়া ও ঘুম থেকে শুরু করে পেশাগত কাজের সময় ও ধরণ পর্যন্ত পাল্টে যায় এ সময়। তাই স্বাস্থ্যকর ত্বক ও চুলের সৌন্দর্য ধরে রাখতে বেশ কিছু নিয়ম মানা জরুরি।

সারাদিন রোজা রেখে ইফতারের পর আমাদের বেশ ক্লান্ত লাগে। আর এই ক্লান্তির প্রভাব পড়ে আমাদের ত্বক এবং চুলের ওপর। এর কারণ হচ্ছে একটা দীর্ঘ সময় পানাহার থেকে বিরত থাকা। স্বাভাবিক পানি পান না করার জন্য ত্বক ও চুল শুষ্ক হয়ে পড়ে। সারাদিনের প্রভাব দেখা যায় আমাদের ত্বকে। তাই ইফতারের পর কিংবা সারাদিনের যে কোন সময় আমাদের ত্বক এবং চুলে আলাদা যত্নের প্রয়োজন। রমাজানে ত্বক এবং চুলের যত্নে প্রয়জোনীয় কিছু পরামর্শ পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো……..

সানস্ক্রিন ব্যবহার করুন: রমজান মাসে বেশ গরম থাকায় তার প্রতিফলন পড়বে আমাদের ত্বকেও। তাই সূর্যের ক্ষতিকর রশ্মি থেকে রেহাই পেতে অবশ্যই সানস্ক্রিন ব্যবহার করতে হবে, যাতে সানবার্ন না হয়। এতে করে থাকবে সতেজ আপনার ত্বক।

পানি পানের প্রতি গুরুত্ব দিন: সারাদিন রোজা রাখার কারণে আমাদের ত্বক হয়ে যায় নিষ্প্রাণ। তাই ত্বক দেখায় প্রাণহীন এবং রুক্ষ। আমরা যেহেতু রোজায় দিনের বেলা পানাহারথেকে বিরত থাকি তাই ত্বকে তার প্রভাব পড়া খুবই স্বাভাবিক। তাই ইফতারের পর এবং সেহরি পর্যন্ত পর্যাপ্ত পানি পান করতে হবে। ইফতার খাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে খুব বেশি পানি পান করবেন না। খাওয়ার অন্তত আধা ঘণ্টা পর পানি পান করুন। পানি পানের পাশাপাশি ফলের রস পান করতে পারেন।

ভাজাপোড়া খাবার পরিহার করুন: রোজায় ইফতারে বেশ ভাজাপোড়া খাবার খাওয়া হয়। যা শরীর এবং ত্বকের জন্য ঠিক নয়। ভাজাপোড়া খাবার স্কিনের ওপরও বেশ ক্ষতিকর প্রভাব ফেলে। তেলে ভাজা খাবার, প্রসেসড ফুড ব্রণের মতো সমস্যার সৃষ্টি করে। তাই যতটুকু সম্ভব ভাজাপোড়া খাবার পরিহার করে প্রতিদিনের খাবার তালিকায় শাকসবজি ও ফল রাখুন।

রোজায় চুলের যত্ন: নিয়মিত চুলে তেল দিন- সুন্দর ও ঝলমলে চুল পেতে অবশ্যই সপ্তাহে দুইদিন চুলে তেল দিতে হবে। এতে করে চুল তার প্রয়োজনীয় পুষ্টির যোগান পাবে এবং সিল্কি হবে। এতে করে চুল পরা কমে যাওয়ার পাশাপাশি চুল হবে ঝলমলে ও সুন্দর।

ঘরোয়া হেয়ার প্যাক ব্যবহার করুন: ঘরোয়া উপায়ে সুন্দর চুল পেতে সপ্তাহে দুইদিন থেকে তিনদিন হেয়ার প্যাক ব্যবহার করুন।

যেমন- একটি ডিমের সাদা অংশের সাথে ৫ থেকে ৬ টেবিল চামচ টক দই ভালভাবে মিশিয়ে নিন। এবার এই প্যাকটি চুলের গোঁড়া থেকে আগা পর্যন্ত লাগিয়ে নিন। ২০ মিনিট অপেক্ষা করে, চুলের ধরন অনুযায়ী শ্যাম্পু ব্যবহার করে চুল পরিষ্কার করে নিন। এই প্যাকটি চুলের রুক্ষতা দূর করে চুলকে মসৃণ ও ঝলমলে করে তুলবে।

প্রাকৃতিক উপায়ে চুল শুকানো: সুন্দর চুলের জন্য যতটুক সম্ভব অকৃত্রিম উপায় ব্যবহার না করাই শ্রেয়। তাই চুল শুকানোর জন্য হেয়ার ড্রায়ার বা চুলের যে কোনো সাজের জন্য কোন ধরনের ইলেকট্রিক যন্ত্র ব্যবহার করা উচিত নয়। এতে করে চুল প্রাকৃতিকভাবে থাকবে স্বাস্থ্যোজ্জ্বল।

এছাড়াও রমজানে কিছু অভ্যাস এড়িয়ে চলাই ভালো:

* ইফতারে হঠাৎ করে প্রচুর খাবেন না।

* ইফতারের পর চা, কফি ও সোডাজাতীয় খাবার গ্রহণ থেকে বিরত থাকুন। এগুলোর পরিবর্তে প্রচুর পানি পান করুন।

* অতিরিক্ত মসলাজাতীয় খাবার খাবেন না। এগুলো বুক জ্বালা ও বদ হজমের কারণ হয়ে উঠতে পারে।

* সেহরিতে অতিরিক্ত লবণজাতীয় খাবার যেমন আচার, সল্টেড বিস্কিট ইত্যাদি খাওয়া উচিত নয়।

* সেহরিতে অতিরিক্ত মসলাজাতীয় খাবার খেলে বেশি পিপাসা পায়।

* সেহরিতে অতিরিক্ত মিষ্টিজাতীয় খাবার এড়িয়ে চলুন।

এম এস, ২৩ এপ্রিল

Back to top button