ইউরোপ

মারিউপোলের কাছে ৮৫ মিটার দীর্ঘ গণকবরের সন্ধান

কিয়েভ, ২৩ এপ্রিল – ইউক্রেনের বুচা শহরের পর এবার মারিউপোলের কাছে প্রায় ৮৫ মিটার দীর্ঘ গণকবরের সন্ধান মিলেছে। স্যাটেলাইট চিত্রে চিহ্নিত হওয়া এই গণকবরে প্রায় ২০০ মানুষেকে মাটিচাপা দেয়া হয়েছে।

যুক্তরাজ্যভিত্তিক গণমাধ্যম সংস্থা বিবিসি তাদের এক প্রতিবেদনে জানায়, যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক মাক্সার টেকনোলজিস তাদের স্যাটেলাইট চিত্র পর্যালোচনা করে বলেছে, মার্চের শেষ দিক থেকে কবরস্থানটির পরিসর বাড়তে শুরু করেছিলো।

এ বিষয়ে ইউক্রেনের স্থানীয় কর্মকর্তারা অভিযোগ করে বলেছেন, রাশিয়ার সেনাদের হাতে নিহত মারিউপোলের বাসিন্দাদের এই গণকবরে সমাহিত করেছে রুশ সেনারা। তবে মস্কো এ বিষয়ে এখনও কোনও মন্তব্য করেনি।

স্যাটেলাইটে দেখা যাচ্ছিলো গণকবরটি মারিউপোলের প্রায় ২০ কিলোমিটার পশ্চিমে মানহুশ নামক একটি গ্রামের কাছে। মাক্সার বলছে, কবরস্থানটিতে চারটি ভাগে সারিবদ্ধ কবর আছে, যা প্রায় ৮৫ মিটার দীর্ঘ। তবে বিবিসি স্যাটেলাইটের ছবিগুলো নিরপেক্ষভাবে যাচাই করতে পারেনি।

এর আগে এক বিবৃতিতে মারিউপোলের সিটি কাউন্সিল অভিযোগ করেছিলো রুশ বাহিনী ওই একই জায়গায় বেসামরিক নাগরিকদের গণকবর দেয়ার।

সেসময় তারা বলেছিলো, রুশ বাহিনী পরিখা খনন করছে, মরদেহ নিয়ে যেতে লরি ব্যবহার করছে। আকাশ থেকে নেয়া নিজস্ব একটি ছবিও প্রকাশ করেছিলো সিটি কাউন্সিল। তারা বলেছিল, পাশের সমাধিক্ষেত্রের চেয়ে গণকবরটি ইতোমধ্যেই দ্বিগুণ বড় হয়ে গেছে।

উপগ্রহ থেকে পাওয়া চিত্রে মারিউপোলের একটি গণকবরের ছবি দেখা গেছে। রাশিয়ার সেনারা নিহতের সংখ্যা লুকাতে মরদেহ এখানে কবর দিচ্ছে। এ অভিযোগ করেছেন মারিউপোলের মেয়র ভাদিম বয়চেঙ্কো। স্যাটেলাইট চিত্রগুলি মারিউপোলের বাইরে মানহুশ শহরের একটি বিদ্যমান কবরস্থান থেকে দূরে প্রসারিত কবরের দীর্ঘ সারি দেখা যায়।

স্থানীয় কর্মকর্তারা অভিযোগ করেছেন, রাশিয়া বন্দর নগরী অবরোধে সংঘটিত হত্যাকাণ্ড গোপন করতে সেখানে ৯ হাজার ইউক্রেনীয় বেসামরিক নাগরিককে কবর দিয়েছে।

মারিউপোলের মেয়র ভাদিম বয়চেঙ্কো বলেন, অবরুদ্ধ শহর মারিউপোলে রাশিয়ার ধ্বংসযজ্ঞ দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় বেবিন ইয়ারে নাৎসি জার্মানির দ্বারা পরিচালিত গণহত্যার সমান।

তিনি বলেন, মারিউপোল হলো ‘একবিংশ শতাব্দীর সবচেয়ে বড় যুদ্ধাপরাধের দৃশ্য’। এটা নতুন বেবিন ইয়ার। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে হিটলার যেমন ইহুদি, রোমা এবং স্লাভদের হত্যা করছিলেন, তেমনই এখন পুতিন ইউক্রেনীয়দের নির্মূল করছেন। তিনি ইতিমধ্যে মারিউপোলে কয়েক হাজার বেসামরিক মানুষকে হত্যা করেছেন। যুদ্ধবিধ্বস্ত মারিউপোলে আটকে থাকা এক লাখ বেসামরিক নাগরিকের ভাগ্য এখন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের হাতে। এসব মানুষের সাথে কী ঘটবে তা পুতিন একাই ঠিক করতে পারেন।

সূত্র : বাংলাদেশ জার্নাল
এম এস, ২৩ এপ্রিল

Back to top button