ক্রিকেট

শেষ ম্যাচে মাশরাফিদের হারিয়েও মোহামেডানের বিদায়

ঢাকা, ১৬ এপ্রিল – ওয়ালটন ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগের রাউন্ড রবিন লিগের শেষ ম্যাচে জয় পেয়েছে মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব। শুক্রবার বিকেএসপিতে তারা ৮০ রানে হারিয়েছে মাশরাফিদের লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জকে। মোহামেডান আগে ব্যাট করে কুশাল মেন্ডিস ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের ব্যাটে ভর করে সবকটি উইকেট হারিয়ে ৩০৭ রানের বড় সংগ্রহ দাঁড় করে। জবাবে সবকটি উইকেট হারিয়ে ২২৭ রানের বেশি করতে পারেনি রুপগঞ্জ।

৮০ রানে জয় পেলেও নেট রান রেটের ব্যবধানে সুপার লিগে উঠতে ব্যর্থ হয়েছে মতিঝিলের ক্লাবটি।

৩০৭ রান তাড়া করতে নামা রুপগঞ্জকে শুরুতেই দারুণভাবে চেপে ধরে মোহামেডান। নাজমুল ইসলাম অপু ও শুভাগত হোম ঘূর্ণি জাদুতে ১০২ রানেই তুলে নেয় রুপগঞ্জের ৬ উইকেট। কিন্তু মোহামেডানের পথের কাঁটা হয়ে দাঁড়ান নাঈম ইসলাম ও মাশরাফি। ১০২ রানে ৬ উইকেট হারানো রূপগঞ্জ বাকি ৪ উইকেট হারিয়ে তোলে আরও ১২৫ রান। তার মধ্যে নাঈম ইসলাম ৮০ রান করেন। ২১ রান করেন সাব্বির রহমান। মাশরাফি ১ চার ও ৪ ছক্কায় ৩০ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলেন। শেষ পর্যন্ত ৪৯.১ ওভারে ২২৭ রানে গুটিয়ে যায় রূপগঞ্জ।

নাজমুল অপু ১০ ওভার বল করে ২ মেডেনসহ ৩৫ রান দিয়ে নেন ৫টি উইকেট। ২টি উইকেট নেন শুভাগত হোম।

তার আগে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে ৫৪ রানে প্রথম উইকেট হারায় মোহামেডান। ৩১ রান করে ফিরেন রনি তালুকদার। সেখান থেকে পারভেজ হোসেন ইমন ও কুশাল মেন্ডিস দলীয় সংগ্রহকে টেনে নেন ১৬৯ রান পর্যন্ত।

এরপর ইমন ৭ চার ও ৪ ছক্কায় ৭৬ রান করে আউট হন। তবে কুশাল মেন্ডিস তুলে নেন সেঞ্চুরি। ৯১ বলে ৭টি চার ও ৪ ছক্কায় ১০১ রান করেন তিনি।

এরপর মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ৪৭ বলে ৫ চার ও ৪ ছক্কায় ৭০ রানের মারকুটে ইনিংস খেলেন। ৪৭.৫ ওভারের মাথায় শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে আউট হন তিনি। তাতে সবকটি উইকেট হারিয়ে সাদা-কালো শিবির ৩০৭ রান করতে পারে।

বল হাতে রূপগঞ্জের মেহেদী হাসান রানা ৪টি উইকেট নেন। ২টি উইকেট নেন তানভীর হায়দার। ১টি করে উইকেট নেন মাশরাফি বিন মুর্তজা, চিরাগ জানি ও নাবিল সামাদ।

ম্যাচসেরা নির্বাচিত হন মোহামেডানের কুশাল মেন্ডিস।

এই হারে ১০ ম্যাচ থেকে ৫ জয়ে ও ৫ হারে ১০ পয়েন্ট সংগ্রহ করে সপ্তম স্থানে থেকে সুপার লিগে উঠতে ব্যর্থ হয় সাদাকালো শিবির। সমান ম্যাচ থেকে সমান পয়েন্ট নিয়ে নেট রান রেটে এগিয়ে থেকে গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্স সুপার লিগে উঠে।

সূত্র : রাইজিংবিডি
এম এস, ১৬ এপ্রিল+

Back to top button