ইউরোপ

যুদ্ধের মধ্যেই হৃদরোগে আক্রান্ত রুশ প্রতিরক্ষামন্ত্রী

মস্কো, ১৫ এপ্রিল – হৃদরোগে আক্রান্ত হয়েছেন রাশিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রী সের্গেই শোইগু। প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের বিশেষ ঘনিষ্ঠ এ মন্ত্রীর শারীরিক অবস্থা উদ্বেগজনক বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন।

তাকে হাসপাতালের আইসিইউতে রাখা হয়েছে। তিনি এ যাত্রায় বেঁচে গেলেও স্বাভাবিক জীবনে আর ফিরতে পাবেন না বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। খবর ডেইলি মিররের।

পুতিনের সঙ্গে বরাবরই ভালো সম্পর্ক শোইগুর। কিন্তু হালে তাদের সম্পর্কে ফাটল দেখা দিয়েছিল বলে দাবি একাধিক সংবাদমাধ্যমের।

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর, গত কয়েক সপ্তাহ ধরে রুশ প্রতিরক্ষামন্ত্রীকে প্রকাশ্যে দেখা যায়নি। তার মধ্যে ইউক্রেন আক্রমণের পর রাশিয়ার ২০ জন জেনারেলকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

আমেরিকার গোয়েন্দা বাহিনীর দাবি, রাশিয়ার ইউক্রেন আক্রমণের বেশ কয়েকটি অভিযান ব্যর্থ হয়েছে। কিয়েভকে কিছুতেই কব্জায় আনতে পারছেন না রুশ সেনারা।

একাধিক আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমের দাবি, বেশ কিছু বিষয়ে পুতিন ও শোইগুরের মতপার্থক্য প্রকাশ্যে চলে আসছিল। এর মধ্যেই জানা গেল, গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েছেন ৬৬ বছর বয়সি প্রতিরক্ষামন্ত্রী।

গত ২৪ ফেব্রুযারি রাশিয়া ইউক্রেন আক্রমণের মাত্র দুই দিন আগে পুতিনের একটি ভিডিওবার্তা নেটমাধ্যমে ঘুরপাক খাচ্ছিল।

তাতে পুতিন রুশ গোয়েন্দাপ্রধানকে ডোনেৎস্ক ও লুহানস্ককে স্বাধীন হিসেবে স্বীকৃতির বিষয়ে স্পষ্ট অবস্থান জানাতে বলেছিলেন।

পুতিন চেয়েছিলেন সেনাপ্রধান এবং গোয়েন্দাপ্রধান, সবাই তার সিদ্ধান্তকে সমর্থন করে বিবৃতি দেবেন। কিন্তু এর কয়েক দিন পরই ভাইরাল হওয়া আর একটি ছবিতে দেখা যায় একটি বৈঠকের সময় প্রেসিডেন্ট পুতিন এবং প্রতিরক্ষামন্ত্রী শোইগু একে অন্যের থেকে বেশ খানিকটা দূরে বসে আছেন। স্বাভাবিক ভাবে এ নিয়ে জল্পনা শুরু হয়।

২০১২ সালে রাশিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রী হন শোইগু। তার আগে প্রায় এক দশক রুশ সেনাবাহিনীকে নেতৃত্ব দিয়েছেন তিনি। এমনকি ২০১৪ সালে রাশিয়ার ক্রিমিয়া দখলের সময়ও নেতৃত্বে ছিলেন তিনিই।

সূত্র : যুগান্তর
এম এস, ১৫ এপ্রিল

Back to top button