ইউরোপ

হাজারের বেশি ইউক্রেনের সেনা আত্মসমর্পণের দাবি রাশিয়ার

মস্কো, ১৩ এপ্রিল – মারিউপোলে আত্মসমর্পণ করেছে এক হাজারেরও বেশি ইউক্রেনীয় সেনা। বুধবার (১৩ এপ্রিল) এমনটাই দাবি করেছে রাশিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রণালয়। কৌশলগত দিক থেকে পূর্ব ইউক্রেনের এই বন্দর শহরটি মস্কোর কাছে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। খবর রয়টার্সের।

গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে বিশেষ সামরিক অভিযান শুরু করেছে রাশিয়া। প্রায় ৫০ দিন ধরে ভৌগোলিকভাবে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বন্দর শহর মারিউপোলে চারদিক ঘিরে ধরে লাগাতার আক্রমণ চালাচ্ছে রাশিয়া। মস্কো থেকে এই সংক্রান্ত যে বিবৃতি প্রকাশ হয়েছে তাতে বলা হয়েছে, মারিউপোল শহরে ইউক্রেনের ৩৬তম মেরিন ব্রিগেডের এক হাজার ২৬ জন সেনাকর্মী আত্মসমর্পণ করেছেন। এদের মধ্যে রয়েছেন ১৬২ জন কর্মকর্তা।

ভৌগোলিক ও কৌশলগত দিক থেকে রাশিয়ার কাছে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ পূর্ব ইউক্রেনের বন্দর শহর মারিউপোল। কারণ, রাশিয়া অধিকৃত ক্রিমিয়ার সঙ্গে রুশপন্থিদের কব্জায় থাকা দোনেস্ক ও লুহানস্ক এলাকাকে (দোনবাস অঞ্চল) যুক্ত করতে চায় মস্কো। এই যোগসাধনের জন্য প্রয়োজন বন্দর শহর মারিউপোলে দখল কায়েম করা। সেই কারণেই শহরটি রাশিয়ার কাছে এত গুরুত্বপূর্ণ। মারিউপোল দখলের লড়াইয়ে এরমধ্যে হাজারের ওপর সাধারণ মানুষের মৃত্যু হয়েছে বলে দাবি করেছে ইউক্রেন।

এদিকে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের বিরুদ্ধে ইউক্রেনে ‘গণহত্যার’ অভিযোগ তুলেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। স্থানীয় সময় মঙ্গলবার (১২ এপ্রিল) যুক্তরাষ্ট্রের আইওয়া অঙ্গরাজ্যে এক অনুষ্ঠানে তিনি রুশ প্রেসিডেন্ট পুতিনের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ তোলেন।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট সাংবাদিকদের আরও বলেন, আমি একে গণহত্যাই বলছি, কারণ এটি আরও স্পষ্ট যে ইউক্রেনে আগ্রাসন চালিয়ে যেসব হত্যাকাণ্ড চালানো হয়েছে, তা মুছে ফেলার চেষ্টা করছেন পুতিন ও এসব প্রমাণ আরও বাড়ছে।

সূত্র: জাগো নিউজ
এম ইউ/১৩ এপ্রিল ২০২২

Back to top button