জাতীয়

ঈদের ছুটির আগে এপ্রিলের ১৫ দিনের বেতন পাবেন পোশাকশ্রমিকরা

ঢাকা, ১১ এপ্রিল – ঈদুল ফিতরের ছুটির আগে তৈরি পোশাকসহ প্রতিটি কারখানার শ্রমিকদের এপ্রিল মাসের ১৫ দিনের বেতনসহ বকেয়া পরিশোধ করতে হবে। দিতে হবে বোনাস।

সোমবার রাজধানীর বিজয় নগরের শ্রম ভবনে এক ত্রিপক্ষীয় পর্ষদ সভায় শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান এসব নির্দেশনা দেন।

প্রতিমন্ত্রীর সভাপতিত্বে সরকার, মালিক, শ্রমিক ত্রি-পক্ষীয় পরামর্শ পরিষদের (টিসিসি) ৭১তম সভা এবং আরএমজিবিষয়ক ত্রিপক্ষীয় পরামর্শ পরিষদ (আরএমজি-টিসিসি) এর ১২তম এই সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সেখানে প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান জানান, জরুরি রপ্তানি থাকলে সেক্ষেত্রে ঈদের ছুটিতে কারখানা খোলা রাখতে পারবেন মালিকরা। এটা হবে রাষ্ট্রের স্বার্থে, অর্থনীতির স্বার্থে।

তৈরি পোশাক শ্রমিকদের ঈদের ছুটির বিষয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ঈদকে সামনে রেখে সরকারি ছুটির সঙ্গে সমন্বয় করে কারখানা মালিকরাও ছুটি ঘোষণা করবেন। সরকারি ছুটির শুরুর আগেই বোনাস, মার্চ মাসের বেতন, বকেয়া এবং চলতি মাসের ১৫ দিনের বেতন প্রদান করতে হবে।

সভায় শ্রমিক নেতা নাজমা বলেন, ২০ রমজানের আগেই অর্থাৎ ২২ এপ্রিলের আগেই পোশাককারখানার শ্রমিকদের বোনাস দিতে হবে। এতে তারা নিজের ও পরিবারের জন্য কিছু কেনাকাটা করতে পারবেন। আবার ২৭ রমজানের আগেই এপ্রিল মাসের ন্যূনতম ১৫ দিনের বেতন দিতে হবে। এটা করতে পারলে শ্রমিকরা নিজ পরিবারের সঙ্গে গ্রামে উৎসব উদযাপন করতে পারবেন।

টিসিবির মাধ্যমে পোশাক কারখানা শ্রমিকদের পণ্য দেওয়ার ব্যবস্থার দাবি জানান শ্রমিক নেতা রাশেদুল হক রাজু।
তিনি বলেন, নিত্যপণ্য বেড়ে শ্রমিকদের ক্রয়ক্ষমতার বাইরে চলে গেছে। টিসিবির মাধ্যমে তাদের কাছে পণ্য বিক্রির ব্যবস্থা করতে হবে।একই সঙ্গে ঈদে বাসের ভাড়া বৃদ্ধির বিষয়টি বিবেচনায় আনতে হবে। ঈদের সময় কারখানা ছুটি হলেই ভাড়া বাড়িয়ে দেওয়া হয়, এ বাড়তি ভাড়া বহন করা শ্রমিকের জন্য কষ্টকর।

সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন শ্রম মন্ত্রণালয়ের সচিব এহসান-ই-এলাহী, শ্রম অধিদপ্তরের মহাপরিচালক খালেদ মাহমুদ, বিজিএমইএ’র সহ-সভাপতি নাসির হোসেন, বিকেএমইএ’র প্রতিনিধি ফারজানা শামীমা, শ্রমিক নেতা সুলতান আহমেদ, ফিরোজ হোসাইন, নয়মুর হাসান জুয়েল, সড়ক-মহাসড়ক বিভাগের প্রতিনিধি সুলতানা নাসরিন, ইন্ডাস্ট্রিয়াল পুলিশ প্রতিনিধিসহ বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধি।

সূত্র: যুগান্তর
এম ইউ/১১ এপ্রিল ২০২২

Back to top button