ক্রিকেট

বাউন্ডারিতে ফিফটি ছুঁয়েই বোল্ড মুশফিক

কেপ টাউন, ১০ এপ্রিল – পোর্ট এলিজাবেথের সেন্ট জর্জ পার্কে অনুষ্ঠিতব্য বাংলাদেশ-দক্ষিণ আফ্রিকার মধ্যকার দ্বিতীয় ও শেষ টেস্টের তৃতীয় দিনের খেলার শুরুতেই বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছিল বৃষ্টি। বাংলাদেশ সময় দুপুর ২টা থেকে খেলা শুরুর কথা থাকলেও তা শুরু হয় ২০ মিনিট পর।

বৃষ্টি বাধার পর খেলা শুরু হতেই চারের বৃষ্টি ছোটান ইয়াসির আলী। লিজার্ড উইলিয়ামসের করা দিনের প্রথম ওভারের প্রথম তিনটি বলে কোনো রান নেননি স্ট্রাইকে থাকা ইয়াসির। তবে পরের তিন বলে মারেন টানা তিনটি বাউন্ডারি।

তৃতীয় দিনে ৩১৪ রানে রানে পিছিয়ে থাকা বাংলাদেশ ব্যাট করতে নামে ৫ উইকেটে ১৩৯ রান নিয়ে। ষষ্ঠ উইকেট জুটিতে ইয়াসিরকে নিয়ে আরও ৭০ রান যোগ করেন মুশফিক। দারুণ খেলতে থাকা দুজনেই এগোচ্ছিলেন ফিফটির দিকে। দুজনেই মারেন সমান ৭টি করে বাউন্ডারি।

দিনের প্রথম ঘণ্টাটা নির্বিঘ্নে কাটিয়ে দিলেও পানি পানের বিরতির পর থেকেই যেন মনঃসংযোগ হারিয়ে ফেলেন পঞ্চম টেস্ট খেলতে নামা ইয়াসির। যার ফলস্বরূপ ইনিংসের ৬০তম ওভারে চতুর্থ বলেই মহারাজের স্পিন ফাঁদে পড়েন মিডল অর্ডার এই ব্যাটার। তবে আম্পায়ার মরেইস ইরাসমাস তাতে সাড়া না দিলে রিভিউ নেন নাছোডবান্দা প্রোটিয়া স্পিনার। তবে বলটি লেগ স্ট্যামের বাইরে পিচ করায় শেষ রিভিউটিও হারায় দক্ষিণ আফ্রিকা।

এতে এ যাত্রায় বেঁচে গেলেও এক বল পরেই সেই মহারাজের স্পিনের সামনেই নিজেকে সপে দেন ইয়াসির। আলতো করে পুশ করতে গিয়েও সরাসরি ক্যাচ তুলে দেন মহারাজের হাতেই। আর এতেই শেষ হয়ে তার দ্বিতীয় ফিফটি পূরণের স্বপ্ন। তার ৮৭ বল মোকাবেলায় করা ৪৬ রানের ইনিংসে ছিল ৭টি চারের মার। আর সেইসঙ্গে ১৯২ রানের মাথায় ষষ্ঠ উইকেট হারায় বাংলাদেশ।

এরপর মিরাজকে নিয়ে নিজের ২৫তম টেস্ট ফিফটি পূরণ করেন মুশফিক। ইনিংসের ৬৯তম ওভারে আক্রমণে আসা সিমন হারমারকে বাউন্ডারি হাঁকিয়েই দীর্ঘদিন পর টেস্টে পঞ্চাশ স্পর্শ করেন মিস্টার ডিপেন্ডেবল খ্যাত এই তারকা। তবে এর পরের বলেই লেগ বিফোরের আবেদন নাকোচ হতেই পরের বলে রিভার্স সুইপ খেলতে গিয়ে বোল্ড হয়ে ফেরেন মুশফিক।

যাতে ২১০ রানেই সপ্তম উইকেট হারাল বাংলাদেশ। ১৩৬ বল খেলা মুশফিকের ৫১ রানের ইনিংসে ছিল ৮টি চারের মার। আর এর সঙ্গে সঙ্গেই আরও জোরালো হল টাইগারদের ফলোঅনে পড়ার শঙ্কাটা।

লাঞ্চ বিরতি পর্যন্ত ৭ উইকেট হারানো বাংলাদেশের সংগ্রহ ২১০ রান। মেহেদী মিরাজ ৯ রানে এবং তার সঙ্গে যোগ দেয়া তাইজুল ইসলাম শূন্য রানে অপরাজিত আছেন।

এর আগে প্রথম ইনিংসে দক্ষিণ আফ্রিকার দেয়া ৪৫৩ রানের জবাবে ব্যাট করতে নেমে দ্বিতীয় দিনে ৪১ ওভার ব্যাটিং করে বাংলাদেশ। তাতেই সফরকারী ব্যাটারদের অবস্থা টালমাটাল। দিন শেষে ১৩৯ রান তুলতেই হারাতে হয়েছে ৫ উইকেট।

প্রথম টেস্টে সেঞ্চুরি পাওয়া ওপেনার মাহমুদুল হাসান জয় খুলতে পারেননি রানের খাতাই। মাত্র ৩ রানের আক্ষেপ নিয়ে ফেরেন তামিম ইকবালও (৪৭)। এছাড়া নাজমুল হোসাইন শান্ত ৩৩, মোমিনুল হক ৬ ও লিটন দাস ১১ রানে ফেরায় শঙ্কা জাগে ফলোঅনের।

সূত্র : একুশে
এম এস, ১০ এপ্রিল

Back to top button