দক্ষিণ এশিয়া

ইমরান খানের অভাবনীয় পদক্ষেপে ‘হতভম্ব’ বিরোধীরা

ইসলামাবাদ, ০৪ এপ্রিল – দেশের অর্থনীতি ও পররাষ্ট্রনীতিতে বিপর্যয় ডেকে আনার অভিযোগে অনাস্থা ভোটের মুখে পড়েছিলেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। অবশ্য এ যাত্রায় উতরে গেছেন তিনি। গদি হারাতে হয়নি।

বিরোধীদের অনাস্থা প্রস্তাব খারিজ করে দেওয়ায় ইমরান খানের অনুরোধে পাকিস্তানের জাতীয় পরিষদ ভেঙে দিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট ডা. আরিফ আলভি। এর পরই আগাম নির্বাচনের ঘোষণা দেন ইমরান খান।

অবশ্য রোববারের অনাস্থা ভোটের আগেই বিষয়টি সামাল দেওয়ার ইঙ্গিত দিয়েছিলেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী।

শনিবার লাইভ সম্প্রচারেই এক নাগরিকের প্রশ্নের জবাবে জাতীয় পরিষদের অনাস্থা ভোট নিয়ে তার পরিকল্পনা আছে জানিয়ে ইমরান খান বলেছিলেন, আমার একাধিক পরিকল্পনা আছে। কাল আমিই জিতব।

ইমরান খানের এ পদক্ষেপকে ‘বিস্ময়কর’ বলে আখ্যায়িত করছেন তার সমর্থকরা।

রোববার পার্লামেন্ট ভেঙে দেওয়ার পর পিটিআইয়ের কয়েকজন নেতা ইমরান খানের কার্যালয়ে গিয়ে তার ‘বিস্ময়কর পদক্ষেপের সাফল্যের’ জন্য অভিনন্দন জানান।

এ সময় ইমরান খান বলেন, অনাস্থা প্রস্তাব খারিজ করে দেওয়ার যে সিদ্ধান্ত ডেপুটি স্পিকার দিয়েছেন তাতে বিরোধীরা ‘হতভম্ব’ হয়ে গেছে।

তারা জানান, ইমরান খান বলেছেন, আসলে, কী ঘটে গেছে বিরোধীরা তা বুঝতেই পারছিলেন না।

ওই নেতারা আরও জানান, তিনি যদি একদিন আগে এ বিস্ময়কর পদক্ষেপ নেওয়ার বিষয়ে তাদের (বিরোধীদের) বলতেন, তবে তারা হয়তো এতটা হতভম্ব হতেন না।

তবে অনাস্থা ভোট ঠেকালেও আগাম নির্বাচন ইমরান খানের রাজনৈতিক ভবিষ্যতের জন্য আসলে কী বয়ে আনবে সেই প্রশ্ন থেকে যাচ্ছে।

এদিকে অন্তর্বর্তীকালীন প্রধানমন্ত্রী দায়িত্ব নেওয়ার আগ পর্যন্ত সাংবিধানিকভাবে ইমরান খানই পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর পদে থাকবেন। দেশটির প্রেসিডেন্ট আরিফ আলভি রোববার এক টুইটে এ তথ্য জানিয়েছেন।

রোববার দিবাগত রাত ২টার দিকে দেওয়া টুইটবার্তায় আরিফ আলভি বলেন, ‘সংবিধানের ২২৪ নম্বর অনুচ্ছেদের ‘এ’ ধারার ৪ নম্বর উপধারা অনুযায়ী, অন্তর্বর্তীকালীন প্রধানমন্ত্রী দায়িত্ব নেওয়ার আগ পর্যন্ত ইমরান আহমাদ খান নিয়াজিই পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর পদে থাকবেন।’

সূত্র: যুগান্তর
এম ইউ/০৪ এপ্রিল ২০২২

Back to top button