ইউরোপ

ইউক্রেনের বুচা শহরের রাস্তায় লাশের সারি

কিয়েভ, ০৩ এপ্রিল – ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভ থেকে কয়েক কিলোমিটার দূরের বুচা শহর যেন এক মৃত্যুপুরীতে পরিণত হয়েছে। নির্বিচারে হত্যালীলা চালিয়েছে পুতিনবাহিনী। ইতোমধ্যেই ২৮০ জনের একটি গণকবরের সন্ধান পেয়েছে ইউক্রেনের সেনাবাহিনী। শহরের বিভিন্ন নড়কে ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়ে রয়েছে আরও বহু মানুষের লাশ। এক প্রতিবেদনে এমন তথ্য জানিয়েছে কাতার ভিত্তিক সংবাদ মাধ্যম।

বুচা শহরের মেয়র অ্যানাতোলি ফেদোরুকের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা এএফপি জানায়, মৃতদের অধিকাংশই সাধারণ নাগরিক। রুশ হামলায় মৃতদের ভিড়ে শিশু, কিশোরও রয়েছে রাস্তার উপর ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়ে আছে লাশ। পচা দুর্গন্ধে ক্রমে বাতাস ভারী হচ্ছে। প্রায় জনমানবহীন শহর। চারদিকে গোলাবারুদের দগদগে ক্ষত।

ফেদোরুক আরও জনান, রুশ বাহিনী নিরস্ত্র নাগরিকদের পিছন থেকে গুলি করে মেরেছে। কারণ দেহগুলির মাথার পিছনে গুলির চিহ্ন পাওয়া গেছে। রাস্তায় ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়ে থাকা নিহত ব্যক্তিদের হাতে সাদা ব্যান্ডেজ বাঁধা ছিল। তারা যে নিরস্ত্র, রুশ বাহিনীকে সেই বার্তা দিয়ে নির্বিঘ্নে শহর ছেড়ে চলে যেতে চেয়েছিলেন। রুশ বাহিনীও সেই ব্যান্ডেজ বাঁধার অর্থ বুঝেছিল।

বুচা শহরের সবখানে একই চিত্র। যদিও শহরটির ঠিক কত সংখ্যক মানুষকে হত্যা করেছে রুশ বাহিনী, সেই সংখ্যা এখনো স্পষ্টভাবে জানা যায়নি।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মস্কো ওই দাবি করলেও সত্য হচ্ছে, অপ্রত্যাশিতভাবে সাহসী ও সুসংগঠিত ইউক্রেনীয় প্রতিরোধ রুশ সেনাদের রাজধানী কিয়েভের বাইরেই থামিয়ে দিয়েছিল এবং এর প্রমাণ হচ্ছে- রুশ ট্যাংক ও সাঁজেয়া যানের বিশাল বহরের মরিচা পাকানো ধ্বংসাবশেষ এখনও সেখানেই অর্থাৎ শহরতলির রাস্তায়ই রয়েছে যেখানে সেগুলো ধ্বংস হয়েছিল।

সূত্র : ইত্তেফাক
এম এস, ০৩ এপ্রিল

Back to top button