ক্রিকেট

টম লাথাম যেন নিউ জিল্যান্ডের কপিল দেব

হ্যামিল্টন, ০২ এপ্রিল – ১৯৮৩ বিশ্বকাপে জিম্বাবুয়ের বিপেক্ষে কপিল দেবের নায়োকোচিত ইনিংসের কথা অনেকেরই মনে আছে। ১৭ রানে ৫ উইকেট হারানোর পর তিনি যে ব্যাটিংটা করেছেন সেটা ক্রিকেটপ্রেমীদের মনে থাকবেও অনেক দিন।

শনিবার অধিনায়ক টম লাথাম নিউ জিল্যান্ডের কপিল দেব হলেন। হ্যামিল্টনে এদিন নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে মুখোমুখি হয় কিউইরা। টস হেরে ব্যাট করতে নামা স্বাগতিকদের শুরুতেই নির্মমভাবে চেপে ধরে ডাচ বোলাররা। ২২ রানে প্রথম, ২৫ রানে দ্বিতীয়, ৩০ রানে তৃতীয়, ৩১ রানে চতুর্থ ও ৩২ রানে পঞ্চম উইকেট হারিয়ে বসে ব্ল্যাক ক্যাপসরা।

সেখান থেকে দলের হাল ধরেন লাথাম। কলিন ডি গ্র্যান্ডহোমকে নিয়ে বিপর্যয়ের লাগাম টেনে ধরার চেষ্টা করেন। কিন্তু ৮৯ রানে গ্র্যান্ডহোমও ফেরেন সাজঘরে ১৬ রান করে। লাথাম যেন হয়ে পড়েন নিঃসঙ্গ শেরপা।

এরপর ডগ ব্রাসওয়েলকে নিয়ে তিনি লড়াই শুরু করেন। দলীয় সংগ্রহকে টেনে নেন ১৭৯ রান পর্যন্ত। এই রানে আবারও সঙ্গী হারান লাথাম। ব্রাসওয়েল ২ চার ও ২ ছক্কায় ৪১ রান করে বিদায় নেন।

এরপর ইশ সোধিকে নিয়ে লড়াই করেন লাথাম। ২২১ রানে তাকেও হারান। ১ ছক্কায় ১৮ রান করে যান সোধি। ২৩৫ রানে আবারও সঙ্গী হারান। ৩ রান করে ফেরেন কাইল জেমিসন।

এরপর ব্লাইর টিকনারকে নিয়ে ইনিংস শেষ করে আসেন লাথাম। ৩২ রানে পাঁচ উইকেট হারানো নিউ জিল্যান্ডের ইনিংসে পাঁচ নম্বরে ব্যাট করতে নেমে ইনিংস শেষ করে আসেন তিনি। এই সময়ে ১২৩ বল মোকাবিলা করেন। তার ১০টিকে চারে ও ৫টিকে ছক্কায় পরিণত করেন। অপরাজিত থাকেন ১৪০ রানে। তাতে ৯ উইকেট হারিয়ে নিউ জিল্যান্ড পায় ২৬৪ রানের লড়াকু সংগ্রহ।

ওয়ানডেতে এর আগে তার সর্বোচ্চ রানের ইনিংস ছিল ১৩৭। বাংলাদেশের বিপক্ষে ২০১৬ সালে যেটা তিনি করেছিলেন। আজ সেটাকে ছাড়িয়ে তিনি করেন ১৪০। এটা তো কেবল একটা ইনিংস নয়, একটি মহাকাব্যিক ইনিংস।

সূত্র : রাইজিংবিডি
এম এস, ০২ এপ্রিল

Back to top button