দক্ষিণ এশিয়া

সেনাপ্রধানের সাক্ষাতের পর ভাষণ বাতিল ইমরান খানের

ইসলামাবাদ, ৩১ মার্চ – জাতির উদ্দেশে পূর্ব নির্ধারিত ভাষণ বাতিল করেছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। তার সঙ্গে দেশটির সেনাপ্রধান এবং সামরিক গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআই প্রধানের সাক্ষাতের পর ভাষণ বাতিলের ঘোষণা দেয়া হয়।

এক টুইট বার্তায় বিষয়টি নিশ্চিত করেন ক্ষমতাসীন পিটিআই এর সিনেপর ফয়সাল জাভেদ।

পার্লামেন্টে অনাস্থা ভোটের মুখোমুখি হওয়ার আগে বুধবার (৩০ মার্চ) এ ভাষণ দেয়ার কথা ছিল ইমরানের।

এর আগে মঙ্গলবার জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেয়ার কথা ছিল ইমরানের। কিন্তু কোনো কারণ না দেখিয়েই সে ভাষণের সময় পরিবর্তিত হয়। এর আগে গত রোববার সমাবেশ করেন ইমরান খান। সমাবেশে একটি চিঠি দেখিয়ে তিনি বলেন, তার বিরুদ্ধে বিদেশি ষড়যন্ত্রের প্রমাণ এই চিঠি।

তার সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করতে বিরোধীদের আনা অনাস্থা প্রস্তাব এই বিদেশি ষড়যন্ত্রেরই অংশ। তার এ অভিযোগের কড়া প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

সম্প্রতি অর্থনৈতিক দুরবস্থা ও ভুল পররাষ্ট্রনীতির অভিযোগ তুলে পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষ জাতীয় পরিষদে অনাস্থা প্রস্তাব উত্থাপন করেন বিরোধী নেতারা। এরপর বৃহস্পতিবার পর্যন্ত পরিষদের অধিবেশন মুলতবি ঘোষণা করা হয়। প্রস্তাবের ওপর বিতর্কের পর আগামী ৩ এপ্রিল ভোটাভুটি হতে পারে।

পাকিস্তানের জাতীয় পরিষদে মোট আসন ৩৪২টি। ইমরানকে ক্ষমতাচ্যুত করতে অনাস্থা প্রস্তাবের পক্ষে ১৭২টি ভোটের প্রয়োজন হবে। পাকিস্তান থেকে প্রকাশিত জিও নিউজের হিসাব অনুযায়ী, বিরোধী জোটের হাতে রয়েছে ১৯৯ ভোট। অন্যদিকে, ইমরান সরকারের রয়েছে ১৪২ ভোট।

পার্লামেন্টে আনা বিরোধীদের অনাস্থা ভোটে পাকিস্তানে এ প্রথম কোনো প্রধানমন্ত্রী বিদায় নিতে যাচ্ছেন। সামরিক বাহিনীর হস্তক্ষেপের কারণে পাকিস্তানে এর আগেও কোনো প্রধানমন্ত্রীই তার মেয়াদ পূর্ণ করতে পারেননি।

সূত্র: বাংলাদেশ জার্নাল
এম ইউ/৩১ মার্চ ২০২২

Back to top button