ফুটবল

বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্বের ড্রয়ে কোন পাত্রে কারা?

এই প্রথমবার শীতকালে শুরু হচ্ছে বিশ্বকাপ। ২১ নভেম্বর থেকে ১৮ ডিসেম্বর কাতারের পাঁচটি শহরজুড়ে হবে ফুটবলের এই মহাযজ্ঞ। ১৯৯৮ বিশ্বকাপ থেকে প্রচলিতভাবে এবারের আসরেও অংশ নিবে ৩২ দল। স্বাগতিক হওয়ার সুবাদে কাতার সবার আগে সরাসরি বিশ্বকাপের টিকিট হাতে পেয়েছে। আঞ্চলিক বাছাই পর্ব পেরিয়ে যোগ দিবে আরো ৩১ দল।

এরই মধ্যে ২৯ দল চূড়ান্ত করেছে নিজেদের জায়গায়। দেশগুলো হলো-

আয়োজক- কাতার

আফ্রিকা- ক্যামেরুন, ঘানা, মরক্কো, সেনেগাল, তিউনিসিয়া।

এশিয়া- ইরান, জাপান, সৌদি আরব, দক্ষিণ কোরিয়া

নর্থ, সেন্ট্রাল আমেরিকা অ্যান্ড ক্যারিবিয়ান- কানাডা, মেক্সিকো, যুক্তরাষ্ট্র

ইউরোপ- বেলজিয়াম, ক্রোয়েশিয়া, ডেনমার্ক, ইংল্যান্ড, ফ্রান্স, জার্মানি, নেদারল্যান্ডস, পোল্যান্ড, পর্তুগাল, সার্বিয়া, স্পেন, সুইজারল্যান্ড।

দক্ষিণ আমেরিকা- আর্জেন্টিনা, ব্রাজিল, ইকুয়েডর, উরুগুয়ে।

জুনের মধ্যে বাকি ৩ দলও নির্ধারণ হয়ে যাবে। ইউরোপিয়ান শেষ প্লে অফ সেমিফাইনালে ইউক্রেনের মুখোমুখি হবে স্কটল্যান্ড, বিজয়ী দল ফাইনাল খেলবে ওয়েলসের। ওই ম্যাচে জয়ীরা পাবে কাতারের টিকিট। অন্য দুটি জায়গা চূড়ান্ত হবে আন্তঃমহাদেশীয় প্লে অফে। ১৩-১৪ জুন কাতারে কোস্টারিকা মুখোমুখি হবে নিউ জিল্যান্ডের এবং পেরু মোকাবিলা করবে সংযুক্ত আরব আমিরাত কিংবা অস্ট্রেলিয়াকে, যারা ৭ জুন দোহায় আগে এশিয়ান কনফেডারেশন প্লে অফ খেলবে।

বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্বের ড্র হবে আগামী ১ এপ্রিল। কাতারের রাজধানী দোহায় বাংলাদেশ সময় রাত ১০টায় হবে এই অনুষ্ঠান। টুর্নামেন্টের পর্দা ওঠার সাত মাস আগে দলগুলো জেনে যাবে তাদের গ্রুপ পর্বের প্রতিপক্ষ কারা।

বৃহস্পতিবার (৩১ মার্চ) প্রকাশিত ফিফা র‌্যাংকিংয়ের ভিত্তিতে চারটি সিডিং পাত্রে দলগুলোকে বিভক্ত করা হচ্ছে। টুর্নামেন্টের আয়োজক হিসেবে ‘এ’ গ্রুপের এক নম্বর দল হিসেবে পাত্র-১ এ থাকবে কাতার। একই পাত্রে বিশ্বকাপের টিকিট পাওয়া শীর্ষ সাত র‌্যাংকিংধারী দল জায়গা করে নিবে।

বিশ্বকাপ নিশ্চিত করা পরের সেরা আটটি র‌্যাংকিংধারী দল থাকবে পাত্র-২ এ। তিন নম্বর পাত্রে থাকবে মূল পর্ব নিশ্চিত করা সেরা র‌্যাংকিংধারী ১৬ থেকে ২৩ নম্বর দল। পাত্র-৪ এ থাকবে ২৪ থেকে ২৮ নম্বর সেরা র‌্যাংকিংধারী দলগুলো, তাদের সঙ্গী দুটি আন্তঃকনফেডারেশন জয়ী দল ও উয়েফা প্লে অফ বিজয়ীরা।

পাত্র-১: কাতার, ব্রাজিল, বেলজিয়াম, ফ্রান্স, আর্জেন্টিনা, ইংল্যান্ড, স্পেন, পর্তুগাল।

পাত্র-২: মেক্সিকো, নেদারল্যান্ডস, ডেনমার্ক, জার্মানি, উরুগুয়ে, সুইজারল্যান্ড, যুক্তরাষ্ট্র, ক্রোয়েশিয়া।

পাত্র-৩: সেনেগাল, ইরান, জাপান, মরক্কো, সার্বিয়া, পোল্যান্ড, দক্ষিণ কোরিয়া, তিউনিসিয়া।

পাত্র-৪: ক্যামেরুন, কানাডা, ইকুয়েডর, সৌদি আরব, ঘানা, ওয়েলস/স্কটল্যান্ড/ইউক্রেন, কোস্টারিকা/নিউজিল্যান্ড, পেরু/আমিরাত/অস্ট্রেলিয়া।

৩২ দলকে চারটি করে ৮টি গ্রুপে বিভক্ত করা হবে। আয়োজক হওয়ার সুবাদে কাতারকে সবার আগে রাখা হবে ‘এ’ গ্রুপে। তারপর যথাক্রমে পাত্র-১ থেকে অন্য সাতটি দলকে একে একে বাকি গ্রুপে সাজানো হবে। পাত্র-১ খালি হলে পাত্র-২ থেকে একটি করে দল নিয়ে রাখা হবে ৮ গ্রুপে। একইভাবে প্রতিটি পাত্র খালি হওয়ার পর পরের পাত্র থেকে থেকে গ্রুপের ড্র করা হবে।

সবচেয়ে বেশি ১৩টি দল হওয়ার কারণে ইউরোপিয়ান দেশগুলো ছাড়া একই ফেডারেশনের দুটি দল একই গ্রুপে থাকতে পারবে না। আট গ্রুপের মধ্যে পাঁচ গ্রুপে দুটি করে ইউরোপিয়ান দল রাখা যাবে।

গ্রুপ পর্বের এই ড্র ফিফা অফিসিয়াল ওয়েবসাইট, ইউটিউব ও সোশ্যাল মিডিয়া চ্যানেলসহ তাদের সব প্ল্যাটফর্মে সরাসরি সম্প্রচার করবে। বহুল আকাঙ্ক্ষিত এই ড্র কভার করবে প্রায় সব আন্তর্জাতিক স্পোর্টস টিভি চ্যানেলও। নিঃসন্দেহে কোটি কোটি দর্শকের চোখ থাকবে এই অনুষ্ঠানের দিকে।

সূত্র : রাইজিংবিডি
এন এইচ, ৩১ মার্চ

Back to top button