শিক্ষা

শিক্ষার্থীদের সংঘর্ষের কারণ খুঁজতে তদন্ত কমিটি

ঢাকা, ৩১ মার্চ – রাজধানীর নিউমার্কেট এলাকায় ঢাকা কলেজ ও সরকারি টিচার্স ট্রেনিং কলেজ শিক্ষার্থীদের মধ্যকার সংঘর্ষের ঘটনায় তদন্ত কমিটি গঠন করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন পুলিশের রমনা জোনের উপকমিশনার (ডিসি) সাজ্জাদুর রহমান।

বুধবার রাত সাড়ে ১১টায় ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে উভয় কলেজের প্রশাসনের সঙ্গে আলোচনার পর এ কথা জানান তিনি।

ডিসি সাজ্জাদ বলেন, ঘটনার পুরো বিবরণ একেবারে নিখুঁত ভাবে বের করার জন্য দুই কলেজের পক্ষ থেকেই আলাদা ভাবে তদন্ত কমিটি গঠন করা হচ্ছে। আমরা যতটুকু জেনেছি টিচার্স ট্রেনিং কলেজের কয়েকজন শিক্ষার্থীর সঙ্গে ঢাকা কলেজের তিন শিক্ষার্থীর চা খাওয়াকে কেন্দ্র করেই এই সংঘর্ষের সূত্রপাত হয়।

বর্তমান পরিস্থিতি স্বাভাবিক ও শান্ত রয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, ঢাকা কলেজ শিক্ষার্থীরা বর্তমানে কলেজে এবং তাদের আবাসিক এলাকায় ফিরে গিয়েছে। যেসব আহত শিক্ষার্থীরা ছিলেন তাদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। ঢাকা কলেজের অধ্যক্ষ এবং টিচার্স ট্রেনিং কলেজের অধ্যক্ষসহ অন্যান্য শিক্ষক এখানে এসেছিলেন এবং তাদের মধ্যকার মত বিনিময় হয়েছে। এই ঘটনার বিস্তারিত বিবরণ খতিয়ে দেখার জন্য তারা কমিটি করেছেন।

এসময় পরবর্তীতে এই ঘটনার জেরে যেন পরিস্থিতির আবারও অবনতি না হয় সেটি ঠেকাতে দুই কলেজের সামনেই অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হবে বলেও জানান তিনি।

এর আগে বুধবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে রাজধানীর নিউ মার্কেট এলাকায় ঢাকা কলেজের সামনের সড়কে দুই দল শিক্ষার্থীর মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। এ সময় বেশ কয়েকটি ককটেল বিস্ফোরণের শব্দ পাওয়া যায় ও দুই গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনাও ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, হঠাৎ করে বেশ কয়েকটি ককটেলের শব্দ শুনে লোকজন দিগ্বিদিক ছোটাছুটি শুরু করে। অল্প সময়ের মধ্যেই সায়েন্স ল্যাব থেকে নীলক্ষেত মোড় পর্যন্ত সড়কের দুপাশ ফাঁকা হয়ে যায় এবং ছাত্রদের দু’গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া পাল্টাধাওয়া ও ইটপাটকেল নিক্ষেপ শুরু হয়।

ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীরা রড, চাপাতি, হকিস্টিকস বিভিন্ন ধরণের দেশীয় অস্ত্র নিয়ে টিচার্স ট্রেনিং কলেজ ঘেরাও করে। এরপর তারা ইটপাটকেল ছুঁড়ে কলেজের গেট ভাঙ্গার চেষ্টা করলে ভেতর থেকে ট্রেনিং কলেজের শিক্ষার্থীরা পাল্টা ইটপাটকেল ছুঁড়ে ও ককটেল বিস্ফোরণ করে।

সূত্র : বাংলাদেশ জার্নাল
এন এইচ, ৩১ মার্চ

Back to top button