জাতীয়

সনজীদা খাতুনকে পদ্মশ্রী পুরস্কার হস্তান্তর

ঢাকা, ২৯ মার্চ – বাংলাদেশের সাংস্কৃতিক আন্দোলনের পুরোধা ব্যক্তিত্ব ড. সনজীদা খাতুনকে ভারত সরকারের চতুর্থ সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মাননা পদ্মশ্রী পুরস্কার হস্তান্তর করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (২৯ মার্চ) বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতের হাইকমিশনার বিক্রম দোরাইস্বামী সনজীদা খাতুনের হাতে সম্মাননা স্মরক তুলে দেন। এ সময় ভারতের রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দের পক্ষ থেকে তাকে অভিনন্দন জানান তিনি।

শিল্পকলায় বিশেষ অবদান রাখায় সনজীদা খাতুনকে এ খেতাবে ভূষিত করা হয়েছে। ভারতের ৭১তম প্রজাতন্ত্র দিবস উপলক্ষে তাকে সম্মানিত করার ঘোষণা দেয় দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। কিন্তু মহামারি করোনা সংকটের কারণে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানের আয়োজন করতে বিলম্বিত হয়।

সর্বশেষ গত বছরের ২১ নভেম্বর ভারতের রাষ্ট্রপতি ভবনে পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানের আয়োজনা করা হলেও তাতে অংশ নিতে পারেননি সনজীদা খাতুন। এজন্য এ পুরস্কার হস্তান্তর করলেন ভারতের হাইকমিশনার বিক্রম দোরাইস্বামী।

সনজীদা খাতুন একাধারে রবীন্দ্রসংগীত শিল্পী, লেখক, গবেষক, সংগঠক, সংগীতজ্ঞ এবং শিক্ষক। বাংলাদেশের অন্যতম শীর্ষস্থানীয় সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান ছায়ানটের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য। এছাড়া তিনি জাতীয় রবীন্দ্রসংগীত সম্মিলন পরিষদেরও প্রতিষ্ঠাতা সদস্য। প্রচলিত ধারার বাইরে ভিন্নধর্মী শিশু শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান নালন্দার সভাপতিও তিনি।

সনজীদা খাতুন ১৯৫৪ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বাংলা ভাষা ও সাহিত্যে স্নাতক এবং ১৯৫৫ সালে ভারতের বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি লাভ করেন। ১৯৭৮ সালে একই বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি ডিগ্রি লাভ করেন তিনি। দীর্ঘদিন অধ্যাপনার পর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা ভাষা ও সাহিত্য বিভাগ থেকে অবসর নেন।

এ ছাড়াও সনজীদা খাতুন একুশে পদক (১৯৯১), বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার (১৯৯৮), পশ্চিমবঙ্গের রবীন্দ্র স্মৃতি পুরস্কার (২০১০) প্রভৃতি সম্মাননায় ভূষিত হন।

সূত্র : রাইজিংবিডি
এম এস, ২৯ মার্চ

Back to top button