টলিউড

নায়িকাকে কুপ্রস্তাব, মামলার হুমকি প্রযোজকের!

কলকাতা, ২৯ মার্চ – শোবিজে ‘কাস্টিং কাউচ’-এর প্রচলন পুরনো। বিভিন্ন সময় অনেক নামি তারকাও কাস্টিং কাউচের শিকার হয়েছেন। সেই মুহূর্তে সেসব খবর গোপন থাকলেও পরবর্তীতে প্রকাশ্যে এসেছে। সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে তেমনই এক অভিজ্ঞতার কথা জানিয়েছেন ভারতীয় টেলিভিশনের পরিচিত মুখ প্রিয়াঙ্কা মিত্র।

‘ছদ্মবেশী’ সিরিয়ালের মাধ্যমে লাইট-ক্যামেরা-অ্যাকশনের দুনিয়ায় পথচলা শুরু করেন প্রিয়াঙ্কা। কিন্তু পরিচালক-প্রযোজকের কুপ্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় শুটিং সেটে হেনস্তার শিকার হন তিনি। এমনকি সেই সিরিয়াল ছাড়তে বাধ্য হন অভিনেত্রী। অতঃপর দুই বছর বিরতি দিয়ে ‘খড়কুটো’ নাটকে পার্শ্বচরিত্রে পর্দায় ফেরেন প্রিয়াঙ্কা।

অভিনেত্রীর ভাষ্য, ‘জীবনের প্রথম ধারাবাহিকে কাজ করার সময়ই খুব বাজে অভিজ্ঞতা হয়েছে। পরিচালক-প্রযোজকরা আমাকে উত্ত্যক্ত করেছে। আমার ফোনে খারাপ খারাপ মেসেজ পাঠাতো। তাদের সেসব প্রস্তাবে রাজি হইনি বলে শুটিং সেটে আমাকে হেনস্তা করা হয়েছে। শেষমেশ সেখান থেকে সরে যাই। পরবর্তী দুই বছর ইন্ডাস্ট্রিতে ফেরার সাহস হয়নি।’

এ নিয়ে কয়েক দিন ধরে টলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে আলোচনা চলছে। অবশেষে বিষয়টি নিয়ে মুখ খুলেছেন ধারাবাহিকটির প্রযোজক সুশান্ত দাস। তিনি বলেন, ‘সস্তা প্রচার পেতে এমন কাণ্ড ঘটিয়েছেন নায়িকা প্রিয়াঙ্কা মিত্র। আপনি ভুল চাল দিয়ে ফেললেন, বিখ্যাত হওয়ার উপায় হিসেবে যে পথে হাঁটলেন তা বোকামি। কারণ ইন্ডাস্ট্রিতে সুশান্ত দাস গুরুত্বপূর্ণ লোক নয়, যার সঙ্গে নাম জড়ালে আপনি বিখ্যাত হয়ে যাবেন, তার চেয়ে অভিনয়টা মন দিয়ে করুন।’

প্রিয়াঙ্কার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার হুমকিও দেন প্রযোজক। সুশান্ত দাসের বিরুদ্ধে আনা এই অভিযোগে অনেক তারকাই হতবাক হয়েছেন। যদিও একাধিক তারকা প্রিয়াঙ্কার পক্ষে কথা বলেছেন।

এম এস, ২৯ মার্চ

Back to top button