পশ্চিমবঙ্গ

বিধানসভায় বিজেপি-তৃণমূল সদস্যদের হাতাহাতি, শুভেন্দু সহ সাসপেন্ড ৫ বিধায়ক

কলকাতা, ২৮ মার্চ – ভারতের পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভায় সোমবার (২৮ মার্চ) বিজেপি ও তৃণমূল বিধায়কদের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে। সকাল এগারোটার দিকে বিধানসভার অধিবেশন শুরু হলে প্রথম থেকেই বিজেপি বিধায়করা হট্টগোল করতে থাকেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

হাতাহাতির ঘটনায় বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীসহ পাঁচ বিধায়ককে বহিষ্কার করেছেন স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়। বিজেপি বিধায়করা যখন তুমুল স্লোগান দিচ্ছিলেন সে সময় তৃণমূল বিধায়করা প্রথমে তাদের নির্দিষ্ট আসন থেকেই প্রতিবাদ জানাচ্ছিলেন। কিন্তু পরে তারা সেখান থেকে উঠে এসে বিজেপি বিধায়কদের দিকে তেড়ে যান। সে সময়ই হঠাৎ তৃণমূল কংগ্রেসের বিধায়ক অসিত মজুমদারকে হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়তে দেখা যায়।

এরপর বিধানসভার ভেতরেই বিশৃঙ্খলা তৈরি হয়। দু’দলের বিধায়কদের মধ্যে হাতাহাতি শুরু হয়। বিধানসভার অধ্যক্ষ বিমান বন্দ্যোপাধ্যায় তাদের এই পরিস্থিতি থেকে বিরত হবার জন্য বারবার অনুরোধ করতে থাকেন, কিন্তু তারপরেও পরিস্থিতির কোনো উন্নতি হয়নি।

বিধানসভার বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী বিজেপির সব বিধায়কদের নিয়ে বিধানসভা কক্ষ ত্যাগ করেন।
বিধানসভার বাইরে তারা বিমান বন্দ্যোপাধ্যায় এর বিরুদ্ধে স্লোগান দিতে থাকেন। বিধানসভার ভেতরেই বিজেপির পরিষদীয় দলনেতা মনোজ টীজ্ঞাকে শারীরিকভাবে হেনস্থা করা হয়।

বিধানসভা থেকে বেরিয়ে মনোজ টীজ্ঞা বলেন, আমাকে শারীরিকভাবে হেনস্থা করা হয়েছে। আমার জামা ছিড়ে দেওয়া হয়েছে এবং বুকে আঘাত করা হয়েছে।

বিরোধী দলনেতা বিজেপির শুভেন্দু অধিকারী বলেন, সারা রাজ্যে গুন্ডামি চলছে তারই প্রতিফলন বিধানসভার ভেতরেই আজ দেখা গেছে। সভার ভেতরেও বিজেপির বিধায়করা সুরক্ষিত নন। তিনি বলেন, তৃণমূলের বিধায়করা বিধানসভার ভেতরেও গুন্ডাগিরি করছেন। অবিলম্বে তারা রাজ্যে রাষ্ট্রপতি শাসন জারির জন্য দাবি জানান।

অন্যদিকে বিধানসভার ভেতরে বিজেপি বিধায়কদের আচরণের জন্য অধ্যক্ষ বিমান বন্দ্যোপাধ্যায় অনির্দিষ্টকালের জন্য বিজেপির পাঁচ বিধায়ককে বহিষ্কার করেন। তারা হলেন, বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী, পরিষদীয় দলনেতা মনোজ টীজ্ঞা, শংকর ঘোষ, নরহরি মাহাতো এবং দীপক বর্মন।

অধ্যক্ষ বিমান বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, সভাকক্ষে বিজেপি বিধায়করা যা করেছেন কোনোভাবেই তা মেনে নেওয়া যায় না। নিয়ম অনুযায়ী, তাদের বহিষ্কার করা হয়েছে।

এ বিষয়ে শুভেন্দু অধিকারী বলেন, বিধানসভার ভেতরে আমরা কোন অসভ্যতা করিনি। অধ্যক্ষের অনুমতিক্রমেই আমরা বিক্ষোভ দেখাচ্ছিলাম। তিনি বহিষ্কার করেছেন তা আমরা মাথা পেতে নিলাম এর যোগ্য জবাব মানুষই দেবে।

সূত্র: জাগো নিউজ
এম ইউ/২৮ মার্চ ২০২২

Back to top button