এশিয়া

মিয়ানমারের ৫ ব্যক্তি ও ৫ প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে মার্কিন নিষেধাজ্ঞা

নেপিডো, ২৬ মার্চ – মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীর সঙ্গে জড়িত ৫ ব্যক্তি এবং ৫টি প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে মার্কিন ট্রেজারি অফিস অব ফরেন অ্যাসেটস কন্ট্রোল (ওএফএসি)।

শুক্রবার এই নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে বলে ওএফএসির এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে।

মিয়ানমারের সামরিক বাহিনী গণহত্যা, মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধ এবং রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে জাতিগত নিধন চালিয়েছে বলে যুক্তরাষ্ট্রের সিদ্ধান্তের কয়েক দিন পর এই নিষেধাজ্ঞা এলো।

প্রায় ৭ লাভ ৫০ হাজার রোহিঙ্গা মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে সামরিক অভিযান থেকে পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয় এবং তারা প্রায় ৩ লাখ রোহিঙ্গার সঙ্গে যুক্ত হয়। যারা এর আগে পালিয়ে এসেছিল।

ওএফএসি’র এক বিবৃতিতে বলা হয়, সামরিক বাহিনী কয়েক দশক ধরে অন্যান্য জাতিগত ও ধর্মীয় সংখ্যালঘু গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে নৃশংসতা ও অন্যান্য অপব্যবহার করেছে।

২০২১ সালের ১ ফেব্রুয়ারি মিয়ানমারে অভ্যুত্থানের পর গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত বেসামরিক সরকারকে উৎখাত করে। সামরিক বাহিনী মিয়ানমারের জনগণের বিরুদ্ধে অসংখ্য নৃশংসতা চালিয়েছে। যার মধ্যে রাজনৈতিক ভিন্নমতকে সহিংসভাবে দমন এবং নিরীহ জনগণের বিরুদ্ধে সহিংসতা। এর মধ্যে গত বছরের সশস্ত্র বাহিনী দিবসের সময় গণতন্ত্রপন্থী বিক্ষোভে ১০০ জনেরও বেশি লোককে হত্যার বিষয়টি

ট্রেজারি ফর টেরোরিজম অ্যান্ড ফিন্যান্সিয়াল ইন্টেলিজেন্সের আন্ডার সেক্রেটারি ব্রায়ান ই. নেলসন বলেন, নৃশংসতা এবং নিপীড়ন মিয়ানমারে সামরিক শাসনের ট্রেডমার্ক হয়ে উঠেছে। চলমান সহিংসতা ও নিপীড়নের জন্য যারা দায়ী তাদের জবাবদিহি করতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ ট্রেজারি। আমরা মিয়ানমারের জনগণের প্রতি সমর্থন অব্যাহত রাখব। যারা সাহসিকতার সঙ্গে সামরিক বাহিনীর বিরুদ্ধে দাঁড়িয়েছে।

সূত্র : দ্য ডেইলি স্টার
এন এইচ, ২৬ মার্চ

Back to top button