ইউরোপ

হাসপাতালে হামলা ‘যুদ্ধাপরাধ’ : ইউক্রেন প্রেসিডেন্ট

কিয়েভ, ১০ মার্চ – মারিউপলের শিশু ও প্রসূতি হাসপাতালে বুধবারের হামলাকে ‘যুদ্ধাপরাধ’ বলে অভিহিত করেছেন ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি।

মারিউপল শহরের ওই শিশু ও প্রসূতি হাসপাতালে রাশিয়ার বিমান হামলা কমপক্ষে ১৭ জন আহত হয়েছে।

কিয়েভ থেকে দেওয়া এক ভিডিও ভাষণে জেলেনস্কি বলেন, রাশিয়ান ফেডারেশন কী ধরনের দেশ, হাসপাতাল ও প্রসূতি হাসপাতালকে ভয় পায় এবং সেগুলো ধ্বংস করে?

তিনি বলেন, প্রসূতি হাসপাতালে কেউ কি রুশ নেতাদের গালাগালি করেছে? এটা কি ছিল? এটা কি হাসপাতালের ‘ডিনাজিফিকেশন’ (নাৎসিবাদের প্রভাব মুক্তকরন) ছিল?

জেলেনস্কি বলেন, এটি নৃশংসতা। হানাদাররা মারিউপলে যা করছে, তা ইতোমধ্যে নৃশংসতাকে ছাড়িয়ে গেছে।

তিনি বলেন, রাশিয়ার এই যুদ্ধাপরাধের নিন্দা জানাতে আজ আমাদের ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।

প্রসূতি হাসপাতালে হামলা ‘চূড়ান্ত প্রমাণ… ইউক্রেনে গণহত্যা সংঘটিত হচ্ছে’, বলেন জেলেনস্কি।

উল্লেখ্য, গত ২৪ ফেব্রুয়ারি রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট পুতিনের সামরিক অভিযান ঘোষণার কয়েক মিনিট পরেই ইউক্রেনে বোমা ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলা শুরু করে রুশ সেনারা। এরপর থেকে ইউক্রেন ও রাশিয়ার মধ্যে যুদ্ধ চলছে। ইতোমধ্যে ইউক্রেনের ২০ লাখ ১১ হাজারের বেশি মানুষ বাস্তুচ্যুত হয়েছেন। এ ছাড়া দেশটির দুই হাজারের বেশি বেসামরিক নাগরিক নিহত এবং রাশিয়ার ১১ হাজার সৈন্য নিহত হয়েছে বলে দাবি করেছে ইউক্রেন।

অন্যদিকে রাশিয়া দাবি করেছে, যুদ্ধে তাদের ৪৯৮ সৈন্য নিহত এবং ইউক্রেনের ২ হাজার ৮৭০ জনের বেশি ইউক্রেনীয় সেনা নিহত হয়েছেন। এ ছাড়া জাতিসংঘ জানিয়েছে, রুশ হামলায় এখন পর্যন্ত ইউক্রেনের ৪৭৪ বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছেন। যদিও সংস্থাটি বলেছে, এটি নিশ্চিত যে প্রকৃত হতাহতের সংখ্যা হয়তো অনেক বেশি।

সূত্র : আরটিভি
এম এস, ১০ মার্চ

Back to top button