জাতীয়

সাধারণ মানুষের পকেট কাটা হচ্ছে: ন্যাপ

ঢাকা, ১০ মার্চ – গণবিরোধী ব্যবসায়ী সিন্ডিকেট এখন সরকার নিয়ন্ত্রণ করছে বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশ ন্যাপ মহাসচিব এম গোলাম মোস্তফা ভূইয়া।

তিনি বলেন, সরকারি লুটেরাদের সহযোগিতায় সাধারণ মানুষের পকেট কাটা হচ্ছে। অবৈধ ব্যবসায়ী-সিন্ডিকেট শুধু বাজার নয়, সরকারকেও নিয়ন্ত্রণ করছে।

বুধবার নয়াপল্টনে যাদু মিয়া মিলনায়তনে ‘৯ মার্চ মওলানা ভাসানীর বক্তব্যের স্মরণে’বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টির (বাংলাদেশ ন্যাপ) আলোচনা সভায় গোলাম মোস্তফা এসব কথা বলেন।

ন্যাপ মহাসচিব বলেন, ৭ মার্চ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক ভাষণের পর ৯ মার্চ মজলুম জননেতা মওলানা ভাসানীর বক্তব্য সমগ্র জাতিকে সংগ্রামী ও বিপ্লবী আগুনে পুড়িয়ে সশস্ত্র মুক্তিযুদ্ধের দিনগুলোতে পৌঁছে দেয়। জাতির অন্তরে রাষ্ট্রের অনিবার্যতা স্পষ্ট হয় ও বিপুল শক্তির জন্ম দেয়।

তিনি বলেন, ৯ মার্চ মওলানা ভাসানীর ভাষণের পর প্রধান দুই নেতা একই সিদ্ধান্ত নেয়ার ক্ষেত্রে ঐকমত্য প্রকাশ করেন। তখন স্বাধীনতার ক্ষেত্রে আর কোনো সন্দেহের অবকাশ থাকে না। যদিও আজ ইতিহাস থেকে অব্যাহতভাবে তা মুছে ফেলার চেষ্টা চলছে।

তিনি আরও বলেন, সত্য কখনও পরিবর্তিত হয় না বা মরে যায় না। একদিন আবার মুক্তিযুদ্ধের চেতনাভিত্তিক রাজনৈতিক বিপ্লব ঘটবে। তখন সর্বত্র শোনা যাবে মুক্তি ও সত্যের বাণী।

গোলাম মোস্তফা বলেন, মুক্তিযুদ্ধের চেতনার বদলে সরকার এখন মুক্তবাজার দর্শনের ভিত্তিতে দেশ পরিচালনা করছে। সরকারের বাজার তদারকি ও নিয়ন্ত্রণের অভাবে ব্যবসায়ী-সিন্ডিকেটরা দাম বাড়িয়েই চলছে। করোনার আঘাতে মানুষ যখন বিপর্যস্ত তখন দ্রব্যমূল্যের পাগলা ঘোড়ার ধাক্কায় মানুষের জীবন চরম হুমকির মধ্যে পড়েছে।

সভাপতির বক্তব্যে মো. কামাল ভুইয়া বলেন, কিছু মানুষ শুধু স্বপ্ন দেখাতে নয়, সেই স্বপ্ন বাস্তবায়নের পথে আলোকবর্তিকা হয়ে থাকেন। মওলানা ভাসানী সেই মাপের একজন মানুষ ছিলেন। মওলানা ভাসানীর মুক্তিযুদ্ধে অবদান সবার মধ্যে ছড়িয়ে পড়ুক। শুধু দিবস কেন্দ্রিক স্মরণ না করে, তার চেতনাকে লালন করে সুখী সমৃদ্ধশালী দেশ গড়ি এই হোক প্রত্যয়।

বাংলাদেশ ন্যাপ সাংগঠনিক সম্পাদক ও ঢাকা মহানগরের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মো. কামাল ভুইয়ার সভাপতিত্বে এনডিপি মহাসচিব মো. মঞ্জুর হোসেন ঈসা, দলের ভাইস চেয়ারম্যান স্বপন কুমার সাহা, যুগ্ম-মহাসচিব মো. মহসীন ভুইয়া, সাংগঠনিক সম্পাদক মিতা রহমান, মহানগর প্রচার সম্পাদক বাদল দাস, শ্রম বিষয়ক সম্পাদক হাবিবুর রহমান, জাতীয় নারী আন্দোলনের সাধারণ সম্পাদক নাজমা রহমান, সহ-সভাপতি জীবন নাহার, যুগ্ম-সম্পাদক আনোয়ারা বেগম, সাংগঠনিক সম্পাদক কাকলি রহমান প্রমুখ আলোচনায় অংশ নেন।

সূত্র : বাংলাদেশ জার্নাল
এন এইচ, ১০ মার্চ

Back to top button