অপরাধ

মানুষের অর্থ হাতিয়ে বিপুল সম্পদের মালিক খন্দকার বাবর: পুলিশ

ফরিদপুর, ০৯ মার্চ – বিভিন্ন সরকারি দপ্তরে টেন্ডার বাণিজ্য করেই ক্ষান্ত হননি খন্দকার বাবর, কৌশলে এলাকাবাসীর অর্থ হাতিয়ে নিয়ে বিপুল সম্পদের মালিক হয়ে গেছেন তিনি।

সাবেক এলজিআরডি মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেনের ছোট ভাই খন্দকার মোহতেশাম হোসেন বাবরকে গ্রেপ্তারের পর এমন তথ্য জানিয়েছে ফরিদপুর জেলা পুলিশ।

সোমবার রাত ৩টার দিকে ঢাকার বসুন্ধরা আবাসিক এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। মঙ্গলবার বিকেলে ফরিদপুরের আমলী আদালতে হাজির করা হলে আদালত তাকে জেলহাজতে পাঠান।

এরআগে দুপুরে ফরিদপুর কোতোয়ালী থানার হল রুমে সংবাদ সম্মেলন করে জেলা পুলিশ।

সংবাদ সম্মেলনে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ ও প্রশাসন) মো. জামাল পাশা বলেন, ফরিদপুর সদর উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান মোহতেশাম হোসেন বাবর দীর্ঘদিন ফরিদপুরের বিভিন্ন সরকারি দপ্তরে টেন্ডার বাণিজ্য করেন।

তিনি বলেন, ‘চাকরি দেওয়ার নামে মানুষের কাছ থেকে অর্থ হাতিয়ে নিয়ে দেশে-বিদেশে অঢেল সম্পদের মালিক হয়েছেন বাবর।’

এ ঘটনায় ২০২০ সালের ২৬ জুন বাবরসহ একাধিক ব্যক্তিকে আসামি করে সিআইডি রাজধানীর কাফরুল থানায় অর্থপাচারের মামলা করে। মামলার তদন্ত শেষে ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতের সংশ্লিষ্ট শাখায় গত বছরের ৩ মার্চ বাবরসহ ১০ জনকে আসামি করে অভিযোগপত্র দাখিল করেন সিআইডির সহকারী পুলিশ সুপার উত্তম কুমার বিশ্বাস।

পুলিশ কর্মকর্তা জামাল পাশা জানান, ওই মামলায় পলাতক ছিলেন বাবর। তার নামে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি ছিল।

এ মামলায় ১০ আসামির মধ্যে এ নিয়ে ৮ জন গ্রেপ্তার হলেন। অন্য আসামিরা হলেন, ফরিদপুর শহর আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি সাজ্জাদ হোসেন বরকত ও তার ছোট ভাই ইমতিয়াজ হাসান রুবেল, এলজিআরডি মন্ত্রীর সাবেক এপিএস এএইচএম ফোয়াদ, শহর আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি খন্দকার নাজমুল ইসলাম লেভী, যুবলীগ নেতা আসিবুর রহমান ফারহান, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ফাহাদ বিন ওয়াজেদ ফাহিম ও যুবলীগ নেতা কামরুল হাসান ডেভিড। পলাতক রয়েছেন, মোহাম্মদ আলী মিনার ও তারিকুল ইসলাম নাসিম।

শহর আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি খন্দকার নাজমুল ইসলাম লেভী, যুবলীগ নেতা আসিবুর রহমান ফারহান বর্তমানে জামিনে রয়েছেন।

ফরিদপুরে আনন্দ মিছিল

খন্দকার মোহতেশাম হোসেন বাবরকে গ্রেপ্তারের ঘটনায় ফরিদপুরে আনন্দ মিছিল ও মিষ্টি বিতরণ হয়েছে। মঙ্গলবার বিকেলে জেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে শহরের আলীপুর মোড় এলাকা থেকে একটি মিছিল বের হয়। মিছিলটি শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে প্রেসক্লাবের সামনে গিয়ে শেষ হয়।

আনন্দ মিছিলের আগে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি শামীম হক, পৌর মেয়র অমিতাভ বোস, শহর আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক মনিরুল হাসান মিঠু, যুবলীগের আহ্বায়ক জিয়াউল হাসান মিঠু, শ্রমিক লীগের আহ্বায়ক গোলাম মো. নাছির। পরে মিছিলে আসা লোকজনের মধ্যে মিষ্টি বিতরণ করা হয়।

সূত্র: সমকাল
এম ইউ/০৯ মার্চ ২০২২

Back to top button