ইউরোপ

সামরিক বাহিনীতে নিয়োগপ্রাপ্ত নন, তাদের এই যুদ্ধে ডাকা হয়নি বা ডাকা হবেও না : পুতিন

মস্কো, ০৮ মার্চ – রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন বলেছেন, ইউক্রেনের যুদ্ধে তিনি অপেশাদার বা সংরক্ষিত যোদ্ধাদের জড়াবেন না।

আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষ্যে একটি ভিডিও বার্তায় পুতিন এ মন্তব্য করেন। খবর বিবিসির।

পুতিন বলেন, ‘আমি গুরুত্ব দিয়ে বলছি- যারা সামরিক বাহিনীকে নিয়োগপ্রাপ্ত নন, তাদের এ যুদ্ধে ডাকা হয়নি বা ডাকা হবেও না। এখানে শুধু পেশাদার সামরিক সদস্যরাই কাজ করছে।’

অন্যদিকে ইউক্রেনের পক্ষে যুদ্ধ করতে বিপুল সংখ্যায় বেসামরিক মানুষ তালিকাভুক্ত হচ্ছেন।

যুদ্ধে যে সৈনিক এবং কর্মকর্তারা অংশ নিচ্ছেন, তাদের ‘মা, স্ত্রী, বোন, বধু এবং বান্ধবীদের প্রতি ভিডিও বার্তায় সহমর্মিতা জানান পুতিন।

তিনি বলেন, ‘আমি উপলদ্ধি করতে পারছি, প্রিয়জনদের জন্য আপনারা কতটা উদ্বেগে আছেন।’ এই নারীদের ‘আনুগত্য, নির্ভরযোগ্যতা এবং সহায়তার’ বিষয়টি তার বক্তব্য জুড়ে উঠে এসেছে।

ভিডিও বার্তায় তিনি বলেন, ‘আমাদের প্রিয় নারীরা, আপনাদের সংবেদনশীলতা, সহানুুভূতি এবং অতিমানবিক উদারতার মাধ্যমে বিশ্বকে আরও ভালো এবং দয়াময় করে তুলেছেন, সেজন্য ধন্যবাদ। আকর্ষণীয় কোমলতা এবং আশ্চর্য অন্তর্নিহিত শক্তির একটি মিশেল আপনারা তৈরি করেছেন।’

তবে ২৪শে ফেব্রুয়ারি দ্য ইনসাইডার সংবাদ মাধ্যমে খবর প্রকাশিত হয়েছে যে, হামলার আগে আগে রাশিয়ায় অনেককে সামরিক বাহিনীতে নাম লেখাতে বাধ্য করা হয়েছে। তবে বিবিসি নিরপেক্ষভাবে এ তথ্য যাচাই করতে পারেনি।

গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে সামরিক আগ্রাসন শুরু করে রাশিয়া। ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভসহ বিভিন্ন শহরে ক্ষেপণাস্ত্র হামলাও শুরু করে রুশ বাহিনী।

যুদ্ধে দুই পক্ষেরই ব্যাপক প্রাণহানীর খবর পাওয়া যাচ্ছে। ইতোমধ্যে যুদ্ধের কারণে ইউক্রেন ছেড়েছেন কয়েক লাখ মানুষ। তারা প্রতিবেশি দেশগুলোতে আশ্রয় নিয়েছেন।

সূত্র জানায়, রুশ সীমান্তবর্তী ইউক্রেনের শহরগুলো ঘিরে রেখেছে রাশিয়ার সেনা বাহিনী; হামলা চলছে ইউক্রেনের দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর খারকিভেও।

সূত্র: বাংলাদেশ জার্নাল
এম ইউ/০৮ মার্চ ২০২২

Back to top button