ঢালিউড

নায়ক শাকিল খানের বিরুদ্ধে নায়িকা জনার অভিযোগ

ঢাকা, ০৬ মার্চ – ২০০২ সালে ‘হৃদয়ের বাঁশী’ সিনেমার মাধ্যমে চলচ্চিত্রে আগমন ঘটে সুমনা জনার। এই সিনেমায় প্রথম নায়ক হিসেবে পান শাকিল খানকে। সে বছরই বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন তারা। পরের বছরই তাদের বিচ্ছেদ হয়। আরিয়ান খান নামে তাদের পুত্রসন্তান রয়েছে। বর্তমানে আরিয়ান খান মায়ের সঙ্গে বাস করছেন।

চলচ্চিত্রকে বিদায় জানিয়ে জনা যুক্তরাষ্ট্র চলে যান। সেখানেই স্থায়ী হন। সম্প্রতি ঢাকা ফিরে জনা শাকিল খানের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন। জনার অভিযোগ শাকিল খান তার সন্তানের দায়িত্ব নেননি। জনা বলেন, ২০০৩ থেকে আরিয়ান আমার সঙ্গে আছে। ওর বয়স এখন ১৮।

শাকিল খান কি সন্তানের খবর নেন? এমন প্রশ্নের জবাবে জনা বলেন, ‘প্রতিবেশীদের মতো মাঝেমধ্যে খবর নেয়। যেমন তার (শাকিল খান) যখন বিয়ে হয়নি তখন সে রেগুলার আসতো। ওর বয়স সাত-আট বছর তখন প্রতিবার ঈদে ওকে (আরিয়ান) নিয়ে শপিংয়ে যেত। এরপর ২০১৮ সালেও এসেছিল। তখন ও বাবাকে ঠিকমত চেনেও না। ও যেতে চায়নি। মা জোর করে পাঠিয়েছিলেন।’

সামনে আরিয়ান আমেরিকার সিটিজেন হয়ে যাবে। তখন ওর নাম বদলে হোসাইন হয়ে যাবে বলেও জানান জনা।

অন্যদিকে শাকিল খান চলচ্চিত্র ছেড়ে দ্বিতীয় বিয়ে করে সংসারী হয়েছেন। তিনি তার স্ত্রী-সন্তানদের নিয়ে সুখে আছেন। চলচ্চিত্রে অভিনয় না করলেও সিনেমা সংক্রান্ত অনুষ্ঠানে তাকে দেখা যায়। সর্বশেষ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচনে তিনি কার্যকরী সদস্য পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে নির্বাচনে হেরে যান তিনি। তবে নির্বাচনকে কেন্দ্র করে তার বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালানো হয়েছে বলে দাবি করেন এ অভিনেতা।

অন্যদিকে জনা ২০০৯ সালে জুবায়ের হোসেইনের সঙ্গে দ্বিতীয় বিয়েতে আবদ্ধ হন। জনা শাকিল খান ছাড়াও মান্না, আমিন খান থেকে শুরু করে অনেকের সঙ্গে জুটি বেঁধে অভিনয় করেছেন। ৪০টিরও বেশি সিনেমায় তাকে দেখা গেছে।

এন এইচ, ০৬ মার্চ

Back to top button