এশিয়া

ভিয়েতনাম উপকূলের কাছে মহড়ার ঘোষণা চীনের

বেইজিং, ০৫ মার্চ – ইউক্রেনে চালানো রাশিয়ার ধারাবাহিক হামলায় বিশ্বজুড়ে উদ্বেগ বাড়ছে। এমন পরিস্থিতির মধ্যেই দক্ষিণ চীন সাগরে নতুন করে উত্তেজনা বাড়ালো বেইজিং। কারণ ভিয়েতনামের উপকূলে নতুন করে সামরিক মহড়া শুরু করেছে চিনের ‘পিপলস লিবারেশন আর্মি’ (পিএলএ)। ওই এলাকায় বাণিজ্যিক জাহাজ চলাচল বন্ধেরও আদেশ জারি করা হয়েছে।

ভিয়েতনাম সরকার জানিয়েছে, চীনের হেনান প্রদেশের সানিয়া নৌঁঘাটিতে মোতায়েন করা বাহিনী এই মহড়ায় অংশ নিচ্ছে। বিতর্কিত ওই জলপথের ওপর চীনের বাহিনী কৃত্রিম দ্বীপ তৈরি করেছে। তবে হেনানের ‘মেরিটাইম সেফটি অ্যাডমিনিস্ট্রেশন’ এটিকে ‘রুটিন অনুশীলন’ বলে জানিয়ে বলেছে, আগামী ১৫ মার্চ পর্যন্ত চলবে এই নৌ-মহড়া।

দক্ষিণ চীন সাগর নিয়ে প্রতিবেশী দেশগুলোর সঙ্গে চীনের বিরোধ নতুন নয়। এর আগেও ওই এলাকায় এমন একতরফা পদক্ষেপ নিয়েছে চীন। তা নিয়ে দীর্ঘ দিন ধরেই অসন্তোষ জানিয়ে আসছে ওই অঞ্চলের আশপাশে থাকা দেশগুলো। যু্ক্তরাষ্ট্রসহ পশ্চিমা দেশগুলোর অভিযোগ, চীন সাগরকে নিজেদের ‘সাম্রাজ্য’ হিসেবে ব্যবহার করছে বেইজিং।

জানা গেছে, চীনা নৌবাহিনীর মহড়ার স্থান ভিয়েতনাম উপকূলের হুয়ে শহর ২০০ নটিক্যাল মাইল দূরে। চীনা সামরিক তৎপরতা নিয়ে এরই মধ্যে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে ভিয়েতনাম সরকার।

এর আগে ২০২০ সালে দক্ষিণ চীন সাগরের বিতর্কিত প্যারাসেল দ্বীপপুঞ্জের সর্ববৃহৎ দ্বীপ উডি আইল্যান্ডে চীনের যুদ্ধবিমান মোতায়েনের জেরে বেজিং-হ্যানয় উত্তেজনা তৈরি হয়। তার আগে ২০১৪ সালে চিনের একটি খনিজ উত্তোলনকারী জাহাজ ভিয়েতনামের জলসীমায় ঢুকে খনন শুরু করায় দুই দেশের মধ্যে সংঘাতের পরিস্থিতি তৈরি হয়।

সূত্র: জাগো নিউজ
এম ইউ/০৫ মার্চ ২০২২

Back to top button