ক্রিকেট

সিরিজ জিতে র‌্যাংকিংয়ে আটে ওঠার সুযোগ মাহমুদউল্লাহদের

ঢাকা, ০৫ মার্চ – কুড়ি ওভারের ক্রিকেট যেন বাংলাদেশের দুঃস্বপ্নের নাম। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ থেকে শুরু করে পাকিস্তান সিরিজ। টানা ৮ ম্যাচে হারের বৃত্তে আটকে ছিল মাহমুদউল্লাহরা। তবে আফগানিস্তানকে প্রথম টি-টোয়েন্টিতে উড়িয়ে দিয়ে স্বস্তি খুঁজে পেয়েছে তারা। তাই আত্মবিশ্বাসী বাংলাদেশ আফগানদের হোয়াইটওয়াশ করে চার বছর আগের প্রতিশোধ নিতে মুখিয়ে আছে!

শনিবার (আজ) দুই ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজে বাংলাদেশ ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে থেকে মাঠে নামবে। জিতলে আফগানদের বিপক্ষে প্রথমবার টি-টোয়েন্টি সিরিজ জয়ের স্বাদ নেওয়ার সুযোগ পাবে। মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে ম্যাচটি শুরু হবে বিকাল তিনটায়। গাজী টেলিভিশন ও টি-স্পোর্টস ম্যাচটি সরাসরি সম্প্রচার করবে।

অবশ্য আফগানিস্তানের বিপক্ষে এই ম্যাচটি কেবল সিরিজ নিশ্চিতের নয়। জিততে পারলে টি-টোয়েন্টি র‌্যাংকিংয়ে আফগানদের টপকে একধাপ ওপরেও (আটে) উঠে যাবে মাহমুদউল্লাহরা। অন্যদিকে ওয়ানডে সিরিজ খোয়ানোর পর আফগানদের লক্ষ্য অন্তত টি-টোয়েন্টি সিরিজে হার এড়িয়ে র‌্যাংকিংয়ের পতন ঠেকানো। যদিও গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচের আগে আফগানরা যেন নির্ভার থাকতে চাইছে! শুক্রবার আফগান কোনও ক্রিকেটারই মাঠে আসেননি, পুরোটা দিন হোটেলে ছিলেন তারা। অন্যদিকে বাংলাদেশের ঐচ্ছিক অনুশীলন হলেও বেশিরভাগ ক্রিকেটারই ঘাম ঝরিয়েছেন।

টি-টোয়েন্টি সিরিজ শুরুর আগে এই ফরম্যাটে বাংলাদেশের চেয়ে শক্তিতে, র‌্যাংকিংয়ে ও পারফরম্যান্সে এগিয়ে ছিল আফগানরাই। এমনকি মুখোমুখি লড়াইয়েও এগিয়ে সফরকারীরা। তবে বৃহস্পতিবার সর্বশেষ ম্যাচ জিতে স্বাগতিকরা নিজেদের শক্তি দেখিয়েছে। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে দুই দল এখন পর্যন্ত সাতবার মুখোমুখি হয়েছে। সেখানে আফগানদের ৪ জয়ের বিপরীতে বাংলাদেশের জয় তিনটিতে। দুই দল ২০০৯ সালে একবারই দ্বিপাক্ষিক টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলেছে। সেখানে বাংলাদেশকে ৩-০ ব্যবধানে হোয়াইটওয়াশ করেছিল আফগানিস্তান। বাংলাদেশের এখন মোক্ষম সুযোগ ৪ বছর আগে পাওয়া লজ্জাটা তাদের ফিরিয়ে দেওয়ার।

প্রথম ম্যাচে বাংলাদেশি ব্যাটাররা আফগান স্পিন আক্রমণ বেশ ভালোভাবেই সামাল দিয়েছেন। যদিও বিশ্বের যেকোনও উইকেটে এই ফরম্যাটের ক্রিকেটে ভয়ানক রশিদ খানের লেগস্পিনে বেশ ভুগতে হয়েছে। কিন্তু মুজিব উর রহমান, কায়েস আহমেদ ও মোহাম্মদ নবীদের বেশি সুযোগ দেননি তারা। আজও একই পরিকল্পনা নিয়ে নামতে হবে বাংলাদেশকে। অবশ্য প্রথম ম্যাচ জিতলেও ব্যাটিং নিয়ে দুশ্চিন্তা থেকেই গেছে। অভিজ্ঞ মাহমুদউল্লাহ ও সাকিব আল হাসানের ভুগছেন রান খরায়। আগের ম্যাচে লিটনের কারণে কঠিন পরিস্থিতিতে পড়তে হয়নি। তবে বাংলাদেশের জন্য সুখবর, অভিজ্ঞ ক্রিকেটার মুশফিককে আজকের ম্যাচে পাওয়া যাচ্ছে। অভিজ্ঞ এই তারকা ফিরলে দলের ব্যাটিং লাইন বেশ শক্ত হবে। প্রথম ম্যাচে যে নড়বড়ে ব্যাটিং লাইন ছিল, সেখানে মুশফিক যোগ হওয়াতে আজ তিনে নামতে পারেন সাকিব এবং চারে মুশফিক।

প্রথম ম্যাচে আঙুলের চোটে মুশফিক খেলতে পারেননি। শনিবার মুশফিক ফিরলেও বসতে হতে পারে আগের ম্যাচে অভিষিক্ত ইয়াসির আলী কিংবা টানা ব্যর্থ হওয়া নাঈম শেখকে।

এদিকে কুড়ি ওভারের ক্রিকেট দারুণ খেলা আফগানরা প্রথম ম্যাচে কিছুই করতে পারেনি। অথচ কুড়ি ওভারের ক্রিকেটে ভয়ংকর আফগানরা যেকোনও দিনই জ্বলে উঠতে পারে। তাদের ব্যাটিং লাইনও বেশ দীর্ঘ। পরিকল্পিত ব্যাটিং করলে তা বাংলাদেশের জন্য বড় বিপদ বয়ে আনতে পারে। আফগান ব্যাটিং লাইনআপকে আটকে রাখতে হলে আগের ম্যাচের মতো পরিকল্পিত বোলিং করতে হবে নাসুম-সাকিব-মেহেদী-শরিফুল-মোস্তাফিজদের। তাহলেই চার বছর আগের বদলা নেওয়ার সুযোগ মিলবে।

সূত্র : বাংলা ট্রিবিউন
এন এইচ, ০৫ মার্চ

Back to top button