কক্সবাজার

টেকনাফে বিপুল পরিমান অস্ত্র-গুলিসহ ২ রোহিঙ্গা আটক

কক্সবাজার, ০২ মার্চ – কক্সবাজারের টেকনাফ থেকে বিপুল পরিমান অস্ত্র, গুলি ও পুতিয়া গ্রুপের নিজস্ব পোশাকসহ ২ রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীকে আটক করেছে র‌্যাব। এসময় তাদের কাছ থেকে ৮টি অস্ত্র, ১৮ রাউন্ড গুলি, পুতিয়া গ্রুপের নিজস্ব ৫টি পোশাক উদ্ধার করা হয়। আটক দুইজনই রোহিঙ্গা ডাকাত পুতিয়া গ্রুপের সদস্য।

আটক রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীরা হলো, টেকনাফের হ্নীলা নয়াপাড়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ই-ব্লকের মৃত জহিরের ছেলে মোহাম্মদ শফিক (৩০) ও হ্নীলার পূর্ব সিকদারপাড়ার মৃত ইদ্রিসের ছেলে মোহাম্মদ রমিজ (২৭)। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা রোহিঙ্গাদের শীর্ষ ডাকাত পুতিয়া গ্রুপের সদস্য বলে স্বীকার করেছেন।

কক্সবাজার র‌্যাব-১৫ এর অধিনায়ক লে. কর্ণেল খায়রুল ইসলাম সরকার বুধবার বেলা সাড়ে ১১টায় এসব তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, বুধবার ভোরে টেকনাফের লেদা ক্যাম্প সংলগ্ন এলাকা থেকে বস্তাভর্তি অস্ত্র-গুলিসহ দুইজন রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীকে আটক করা হয়। এসময় বস্তাবর্তী ৬টি একনলা বন্দুক, ১টি থ্রি-কোয়ার্টার গান, ১টি ওয়ান শুটারগান, ১১ রাউন্ড রাইফেলের গুলি, ৭ রাউন্ড কার্তুজ ও ৫ সেট বিশেষ পোশাক উদ্ধার করা হয়।

খায়রুল ইসলাম সরকার জানান, ‘টেকনাফের হ্নীলা ও মুচনী এলাকায় দীর্ঘদিন যাবত খুন, অপহরণ, গুম, চাঁদাবাজি, ডাকাতিসহ অপরাধ কর্ম করে আসছিল রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী পুতিয়া গ্রুপ। ওই এলাকায় আতঙ্কিত এই গ্রুপকে ধরতে নজরদারি করে র‌্যাব। গেল ১৯ ফেব্রুয়ারী এ গ্রুপের সদস্য খায়রুল আমিনকে অস্ত্রসহ আটক করা হয়। এতে ওই গ্রুপের অস্ত্র-গুলি অন্যস্থানে সরিয়ে নেয়া হচ্ছিল বলে স্বীকার করেন আটক ২ জনে। আটককৃতদের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের পর টেকনাফ থানায় হস্তান্তর করা হবে। এই গ্রুপের অপর সদস্যস্যদের আটকে র‌্যাবের নজরদারি ও অভিযান চালমান রয়েছে।’

সূত্র : একুশে
এম এস, ০২ মার্চ

Back to top button