ঢালিউড

কাঞ্চন ভাইকে কল করেছি, আজই চেয়ারে বসব : জায়েদ খান

ঢাকা, ০২ মার্চ – বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচনে সাধারণ সম্পাদক পদের ফলাফল নিয়ে আইনি লড়াইয়ে জয় পেলেন চিত্রনায়ক জায়েদ খান। বুধবার (২ মার্চ) বিচারপতি মামনুন রহমান ও বিচারপতি খোন্দকার দিলীরুজ্জামানের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ রায় দেন।

এদিকে আদালতের রায়ে জয়ী হয়েই সমিতির সভাপতি ইলিয়াস কাঞ্চনকে ফোন করেন জায়েদ খান। আজই সাধারণ সম্পাদকের চেয়ারে বসবেন তিনি।

জায়েদ খান বলেন, ‘বাংলাদেশের আইনের শাসন আছে। হাইকোর্টের প্রতি আমার কৃতজ্ঞতা। আদালতের রায় পেয়েই আমি কাঞ্চন ভাইকে কল করেছি। এখন আর সাধারণ সম্পাদকের চেয়ারে বসতে কোনো বাধা নেই। আজ বিকেলেই বসব।’

নায়কের হয়ে আদালতে লড়াই করা আইনজীবীদের ধন্যবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, ‘সিনিয়র অ্যাডভোকেট আহসানুল করিম ও অ্যাডভোকেট নাহিদ সুলতানা যুথিকে ধন্যবাদ। তাদের অক্লান্ত পরিশ্রমে এই জয়।’

প্রসঙ্গত, গত ২৮ জানুয়ারি বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচনে সাধারণ সম্পাদক পদে ১৩ ভোটে জয়ী হন জায়েদ খান। পরাজিত প্রার্থী নিপুণ আক্তার পুনরায় ভোট গণনা করার আবেদন জানান। সেখানেও জয় পান জায়েদ। এরপর তার বিরুদ্ধে ভোট কেনার অভিযোগ তুলে আপিল করেন নিপুণ। সুরাহা না-হওয়ায় বিষয়টি আদলত পর্যন্ত গড়ায়।

এদিকে ওই নির্বাচনে সাধারণ সম্পাদক পদে চিত্রনায়ক জায়েদ খানের প্রার্থিতা বাতিলের সিদ্ধান্ত কেন অবৈধ হবে না, এ মর্মে জারি করা রুল শুনানি গত ২৪ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত মুলতুবি করেছিলেন হাইকোর্ট।

এর আগে, গত ১৪ ফেব্রুয়ারি চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক পদ নিয়ে হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত করে চেম্বার আদালতের আদেশ বহাল রাখেন আপিল বিভাগ। একইসঙ্গে সাধারণ সম্পাদক পদে স্থিতাবস্থাও বহাল রাখা হয়। পাশাপাশি এ বিষয়ে জারি করা রুল হাইকোর্টকে নিষ্পত্তির নির্দেশ দেন আদালত। প্রধান বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকীর নেতৃত্বে ৬ বিচারপতির পূর্ণাঙ্গ আপিল বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

অবশেষে আজ হাইকোর্টের রায়ে দেশব্যাপী আলোচিত শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক পদ নিয়ে জায়েদ-নিপুণের লড়াইয়ের অবসান হলো।

এম এস, ০২ মার্চ

Back to top button