ইউরোপ

ইউক্রেনের দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর খারকিভের নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে রুশ বাহিনী

কিয়েভ, ০২ মার্চ – রাশিয়ার দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর খারকিভের পতন হয়েছে রুশ সেনাদের হাতে। এটি একটি রুশ ভাষাভাষী শহর। স্থানীয় সময় ভোর ৬টার দিকে এ শহরের পতন হয়।

বুধবার বিবিসি এ খবর জানিয়েছে।

কৌশলগতভাবে গুরুত্বপূর্ণ শহর খারকিভের পতন হওয়ায় রুশ বাহিনী যুদ্ধে অনেকটাই এগিয়ে গেলো বলে মনে করা হচ্ছে।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যমটি জানায়, রাশিয়ার প্যারাট্রুপাররা খারকিভ শহরে অবতরণ করছে। শহরের উপর তাদের আক্রমণ আরও জোরালো করেছে।

রাশিয়ার বোমা বর্ষণে খারকিভ শহরে অনেক বেসামরিক মানুষ নিহত হয়েছেন বলে জানা যাচ্ছে।

তবে এর আগেও একবার রুশ বাহিনী শহরটির দখল নিয়েছিল। পরে ইউক্রেনের বাহিনী তা পুনরুদ্ধার করে।

এরইমধ্যে ইউক্রেনের দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর খারসন দখল করেছে রুশ সেনারা।

এ পরিস্থিতিতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ঘোষণা দিয়েছেন, যুক্তরাষ্ট্রের আকাশ রাশিয়ার বিমানের জন্য নিষিদ্ধ।

বাইডেন তার স্টেট অব দ্য ইউনিয়ন ভাষণের বেশিরভাগ সময় ইউক্রেন সংকট নিয়ে কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘পুতিন হয়তো ট্যাংক দিয়ে কিয়েভ শহর ঘিরে রাখতে পারবেন। কিন্তু তাদের হৃদয় অর্জন করতে পারবেন না।’

যুদ্ধের কারণে অব্যহতভাবে ইউক্রেন ছাড়ছেন সাধারণ মানুষ। জাতিসংঘ বলছে, এখন পর্যন্ত ছয় লাখ মানুষ ইউক্রেন থেকে পালিয়েছে।

এ পরিস্থিতিতে মার্কিন বিমান প্রস্তুতকারী সংস্থা বোয়িং এবং তেল কোম্পানি এক্সনমবিল রাশিয়ার সাথে সম্পর্ক ছিন্ন করেছে।

বেলারুশ তাদের সীমান্তে সেন্য সংখ্যা দ্বিগুণ করার ঘোষণা দিয়েছে। বেলারুশ সরকার রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট পুতিনের বেশ ঘনিষ্ঠ।

এদিকে কিয়েভের দিকে অগ্রসর হচ্ছে রাশিয়ার বিপুল সংখ্যক সেনার বহর। তারা শহরটিতে প্রবেশের চেষ্টা করলে ব্যাপক লড়াইয়ের আশঙ্কা রয়েছে।

সূত্র: বাংলাদেশ জার্নাল
এম ইউ/০২ মার্চ ২০২২

Back to top button