ফুটবল

রুদ্ধশ্বাস ফাইনাল জিতে চ্যাম্পিয়ন লিভারপুল

অবিশ্বাস্য এক লড়াই। একের পর এক উত্তেজনার পারদ ছড়ালো। নির্ধারিত সময়ের পর অতিরিক্ত সময়েও গোলশূন্য থাকা ম্যাচটি যেন বিনোদনের সবটুকু জমা রেখেছিল টাইব্রেকারের জন্য।

সেখানেও হলো লড়াইয়ের পর লড়াই। টাইব্রেকারে দুই দল মিলিয়ে গোল করলো ২১টি! সাডেন ডেথে এগার নম্বরটি মিস করলেন চেলসির গোলরক্ষক কেপা আরিসাবাগা। তাতেই কারাবাও কাপের রেকর্ড শিরোপা নিশ্চিত হয়ে গেলো লিভারপুলের।

লন্ডনের ওয়েম্বলি স্টেডিয়ামে রোববার রাতে হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের পর টাইব্রেকারে ১১-১০ ব্যবধানে জিতেছে ইয়ুর্গেন ক্লপের দল। মূল ম্যাচ ও অতিরিক্ত সময়ে স্কোরলাইন ছিল গোলশূন্য।

টাইব্রেকার জিতে ম্যানচেস্টার সিটিকে ছাড়িয়ে প্রতিযোগিতাটিতে সবচেয়ে বেশি শিরোপা জয়ের রেকর্ড (৯টি) নিজেদের করে নিয়েছে লিভারপুল।

মূল ম্যাচে ৫৫ ভাগ বল দখলে রেখে ২০টি শট নেয় লিভারপুল, যার ৬টি ছিল লক্ষ্যে। অন্যদিকে চেলসি ১১ শটের ৪টি লক্ষ্যে রাখতে পারে। কিন্তু গোল করতে পারে না কোনো পক্ষই। এভাবেই কেটে যায় অতিরিক্ত সময়ও।

টাইব্রেকারে জেমস মিলনারের গোলে এগিয়ে যায় লিভারপুল। চেলসির মার্কো আলোনসোও জবাবে গোল করেন। এরপর একে একে লক্ষ্যভেদ করতে থাকেন লিভারপুলের ফ্যাবিনহো, ফন ডিক, মোহামেদ সালাহরা।

চেলসিও মিস করেনি। রোমেলু লুকাকু, জর্জিনহো, থিয়াগো সিলভারা ঠিকঠাকভাবে জালে বল জড়ান। ১০-১০ সমতা থাকে সাডেন ডেথ চলার সময়ও।

লিভারপুলের হয়ে এগার নম্বর শটটি নিতে আসেন গোলরক্ষক কোয়েমিন কেলেহার। তিনি গোলও করেন। কিন্তু চেলসির হয়ে শট নিতে গিয়ে বদলি গোলরক্ষক কেপা আরিসাবাগা আর স্নায়ু ধরে রাখতে পারেননি। বারের ওপর দিয়ে মেরে বসেন তিনি। তাতেই কপাল পুড়ে চেলসির।

সূত্র : জাগো নিউজ
এন এইচ, ২৮ ফেব্রুয়ারি

Back to top button