চট্টগ্রাম

চট্টগ্রামে অ্যাসিড নিক্ষেপে আইনজীবীর যাবজ্জীবন

চট্টগ্রাম, ২৭ ফেব্রুয়ারি – চট্টগ্রামে প্রেমের বিরোধে যুবককে অ্যাসিড নিক্ষেপের মামলায় শিক্ষানবিশ আইনজীবী সুমিত ধরকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও অপর আসামি সুমিতের স্ত্রী মৌমিতা দত্ত এ্যানীকে খালাস দিয়েছেন আদালত। রোববার চট্টগ্রাম চতুর্থ অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ শরীফুল আলম ভূঁঞার আদালত এ রায় দেন।

যাবজ্জীবন কারাদণ্ড পাওয়া সুমিত ধর জামিনে গিয়ে পলাতক রয়েছেন। তিনি কপবাজার জেলার চকরিয়া থানার হারবাং ধরপাড়া মাস্টার বাড়ির দেবব্রত দাশের ছেলে। জামিনের পর তারা বিদেশে পালিয়ে গেছেন বলে জানা গেছে।

চট্টগ্রাম মহানগর অতিরিক্ত পিপি অ্যাডভোকেট নোমান চৌধুরী বলেন, অ্যাসিড নিক্ষেপ মামলায় স্বামী সুমিত ধরকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও তার স্ত্রী অপর আসামি মৌমিতা দত্ত এ্যানীকে খালাস দেওয়া হয়। তারা জামিনে গিয়ে পলাতক রয়েছেন। আসামির বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা ইস্যু করা হয়েছে।

মামলার বাদী বাবুল চন্দ্র দে বলেন, মামলার আসামি মৌমিতার জন্য অ্যাসিড নিক্ষেপের ঘটনা ঘটেছে। তাকেই খালাস দিয়েছে আদালত। আমরা এ রায় মেনে নিতে পারছি না। আইনজীবীর সঙ্গে আলোচনা করে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

২০১৭ সালের ৯ ফেব্রুয়ারি তমাল চন্দ্র দে’র সঙ্গে ফেসবুকের মাধ্যমে সুমিত ধরের পরিচয় হয়। একই বছরের ১০ ফেব্রুয়ারি কোতোয়ালি থানার রহমতগঞ্জ এলাকায় গণি বেকারি থেকে রহমতগঞ্জ এলাকার কুসুমকুমারী স্কুলে যাওয়ার পথে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে হত্যার উদ্দেশ্যে তমাল চন্দ্র দে’র মুখমণ্ডলে অ্যাসিড ছোড়া হয়।

অ্যাসিড তার মুখমণ্ডল ও চোখ ঝলসে যায়। স্থানীয়রা তমালকে মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান। তমালের অ্যাসিডদগ্ধ মুখমণ্ডল ও চোখের অবস্থা মারাত্মক হওয়ায় ১১ ফেব্রুয়ারি ঢাকায় চক্ষুবিজ্ঞান ইনস্টিটিউটে স্থানান্তর করা হয়। সুমিতের স্ত্রীর মৌমিতা দত্ত এ্যানির সঙ্গে তমালের প্রেমের সর্ম্পক ছিল। তমাল চন্দ্র দে’র বাবা বাবুল চন্দ্র দে সুমিত দাশ ও তার স্ত্রী মৌমিতা দত্ত এ্যানির নাম উল্লেখ করে কোতোয়ালি থানায় ২৩ ফেব্রুয়ারি মামলা করেন।

কোতোয়ালি থানার তমাল চন্দ্র দে নামে এক যুবককে অ্যাসিড নিক্ষেপের মামলায় ৩৪ জন সাক্ষীর মধ্যে ২৪ জনের সাক্ষী নেওয়া হয়। ২০১৯ সালের ২৩ এপ্রিল তাদের বিরুদ্ধে বিচার শুরু করে আদালত। আদালত সুমিত ধরকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন। অনাদায়ে ১ বছরের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন।

সূত্র : সমকাল
এন এইচ, ২৭ ফেব্রুয়ারি

Back to top button