ইউরোপ

বিদেশিদের ইউক্রেনে গিয়ে যুদ্ধ করতে ডাক দিলেন জেলেনস্কি

কিয়েভ, ২৭ ফেব্রুয়ারি – ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি বিদেশিদের তার দেশে গিয়ে রাশিয়ার বিরুদ্ধে লড়াই করার আহ্বান জানিয়েছেন।

সামাজিক মাধ্যমে পোস্ট করা এক বার্তায় তিনি বলেন, ‘সারা পৃথিবীর নাগরিক, ইউক্রেন, শান্তি ও গণতন্ত্রের বন্ধুদের’ প্রতি তিনি এ আহ্বান জানাচ্ছেন।

জেলেনস্কি বলেন, যে কেউ যদি ইউক্রেনের প্রতিরক্ষায় যোগ দিতে চান, তিনি এসে ইউক্রেনীয়দের পাশাপাশি যুদ্ধ করতে পারেন।

ইউক্রেন ন্যাটো জোট সদস্য না হওয়ায় পশ্চিমা দেশগুলো অস্ত্র দিয়ে সাহায্য করলেও এ যুদ্ধে সরাসরি সেনা পাঠাচ্ছে না।

তবে যুক্তরাজ্যের পররাষ্ট্রমন্ত্রী লিজ স্ট্রাস রোববার বলেছেন, কোন ব্রিটিশ নাগরিক যদি ইউক্রেনে গিয়ে যুদ্ধ করতে চান, তাহলে তারা একে সমর্থন দেবেন।

খারকিভ শহরে রুশ ও ইউক্রেনীয় সেনাদের মধ্যে রাস্তায় রাস্তায় যুদ্ধ হচ্ছে এবং এর নানা ভিডিও সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে।

বিবিসির সংবাদদাতা পল এ্যাডামস জানাচ্ছেন, প্রকৃত অর্থে খারকিভ শহরেই রুশ ও ইউক্রেনীয় সেনাদের মধ্যে প্রথমবারের মত রাস্তায় রাস্তায় যুদ্ধ হচ্ছে।

রাস্তার যুদ্ধ অত্যন্ত গোলমেলে এবং কখন কি হবে, তা আগে থেকে বলা কঠিন। আক্রমণ ও প্রতিরক্ষা- দু’দিক থেকেই এ যুদ্ধ এক কঠিন পরীক্ষা।

শহরটি থেকে প্রকাশ পাওয়া কিছু ছবিতে দেখা যাচ্ছে, রাস্তার কোণায় কোণায় ইউক্রেনের সেনারা রকেটচালিত গ্রেনেড নিক্ষেপ করছে এবং রুশ সেনারা সাঁজোয়া যানের পেছনে পেছনে পায়ে হেঁটে এগোচ্ছে।

পল এ্যাডামস লিখছেন, গত কয়েকদিনে রুশ কৌশল ছিল বড় শহরগুলো এড়িয়ে চলা এবং দৃশ্যত তাদের ইচ্ছা ছিল রাজধানী কিয়েভে ঢুকে সরকার পরিবর্তন ঘটানো। খারকিভের ক্ষেত্রে হয়তো সেই কৌশলে একটা পরিবর্তন আনা হয়েছে।

খারকিভ শহরটি রুশ সীমান্তের একেবারে কাছে এবং বরাবরই এ সম্ভাবনা ছিল যে, রুশ অভিযান হলে এ শহরটিই হয়তো প্রথম বিপদে পড়বে।

সূত্র : বাংলাদেশ জার্নাল
এন এইচ, ২৭ ফেব্রুয়ারি

Back to top button