জাতীয়

ইসি নিয়ে বিএনপির কোনো মাথাব্যথা নেই: ফখরুল

ঢাকা, ২৭ ফেব্রুয়ারি – নির্বাচন কমিশন নিয়ে বিএনপির কোনো মাথাব্যথা নেই বলে জানিয়েছেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, ‘আমরা আগেই বলেছি- নির্বাচন কমিশন নিয়ে আমাদের কোনো মাথা ব্যথা নেই। মাথাব্যথা একটা নিয়ে যে, নির্বাচনকালীন সময়ে সরকার কারা থাকবে। যদি আওয়ামী লীগ সরকারে থাকে তাহলে নিশ্চিন্ত থাকতে পারেন, কোনো নির্বাচন হবে না। কারণ, তারা তাদের মতো করে একই কায়দায় নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করবে। আর আমরা বসে বসে দেখবো। আমরা আর সেই নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবো না।’

রোববার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান কল্যাণ ফ্রন্ট আয়োজিত এক সমাবেশে এসব কথা বলেন তিনি। ‘কেনাণীগঞ্জ মডেল থানার ওসি আব্দুস সালামের সাম্প্রদায়িক উক্তি ও নিপুন রায় চৌধুরীর ওপর হামলার প্রতিবাদে’ এ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

সমাবেশে ফখরুল বলেন, ‘একটা মাত্র দাবি, নির্বাচন কমিশন নয়- সার্চ কমিটি নয়, তত্ত্বাবধায়ক সরকার অথবা নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধিনে নির্বাচন হতে হবে। এই সরকারকে পদত্যাগ করতে হবে এবং ওই নিরপেক্ষ সরকারের অধিনে নির্বাচন কমিশন তৈরি করে নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠান করে জনগণের অধিকারকে প্রতিষ্ঠিত করতে হবে।’

নির্বাচন কমিশন সম্পর্কে কি বলবো- এমন প্রশ্ন রেখে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘এই সরকার, সমস্ত রাষ্ট্রযন্ত্রকে দখল করে নিয়েছে। একটি সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠান নির্বাচন কমিশন। যাদের পবিত্র দায়িত্ব হচ্ছে, এদেশের জনগণের যে অধিকার- ভোটের যে অধিকার তাকে সুনির্দিষ্ট করা, তারা যাতে ভোট দিতে পারেন তার ব্যবস্থা করা। এটা তাদের দায়িত্ব। আর একটা প্রতিনিধিত্বমূলক নির্বাচনের মধ্যে দিয়ে সত্যিকার অর্থে জনগণের প্রতিনিধিত্ব করে এরকম একটি সংসদ ও সরকার গঠন করা। কিন্তু আমরা কী দেখেছি, আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পরে থেকেই ওই ব্যবস্থাকে ধ্বংস করে দিয়েছে! তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবিটা তাদেরই ছিলো। আমরা তখন কথা দিয়েছিলাম। পরে আমরা মেনে নিয়েছিলাম। যে এটা জনগণের একটা আকাঙ্ক্ষা, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া কখনও জনগণের ইচ্ছার বিরুদ্ধে যাননি। তিনি এটা মেনে নিয়ে তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থাকে সংবিধানে সংযোজন করেছিলেন। তার অধিনে চারটা নির্বাচন হয়েছে। একটা প্রশ্নও কেউ করেনি।’

সাংবাদিকদেরকে উদ্দেশ্য করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘আমাদের ভোট ও কথা বলার অধিকার নেই। এই যে আমাদের এতো চ্যানেলগুলোর যে সমন্ত সাংবাদিক ভাইয়েরা আছেন, বিশ্বাস করেন- তাদের কোনো ক্ষমতা নেই। কিচ্ছু করতে পারবে না। কিছু লিখতে পারবেন না। প্রচণ্ড চাপ আছে। চাকরি চলে যাবে।’

আয়োজক সংগঠনের আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট গৌতম চক্রবর্তীর সভাপতিত্বে সমাবেশে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, তথ্য বিষয়ত সম্পাদক আজিজুল বারী হেলাল প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

সূত্র: সমকাল
এম ইউ/২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২২

Back to top button