ইউরোপ

খারকিভ শহরের গ্যাস পাইপলাইনে রুশ ক্ষেপনাস্ত্র হামলা

কিয়েভ, ২৭ ফেব্রুয়ারি – ইউক্রেনে রুশ বাহিনীর হামলার চতুর্থ দিনে এসে ‘সিলিকিন ভ্যালি’ খ্যাত খারকিভ শহরের একটি প্রাকৃতিক গ্যাস পাইপলাইনে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়েছে রুশ সৈন্যরা।

কাতারভিত্তিক গণমাধ্যম এক প্রতিবেদনে জানানো হয়, ইউক্রেনের বিশেষ যোগাযোগ ও তথ্য সুরক্ষা বিভাগের পক্ষ থেকেও হামলার খবরটি নিশ্চিত করা হয়েছে। তবে হামলা হওয়া ঐ গ্যাস পাইপলাইন ঠিক কতটা গুরুত্বপূর্ণ ছিলো সে সম্পর্কে কিছুই জানানো হয়নি। আবার এই হামলায় শহরে গ্যাস সরবরাহে কোনো ব্যাঘাত ঘটছে কিনা সে সম্পর্কেও জানা যায়নি।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টেলিগ্রামের এক ভিডিওতেও দেখা যায়, গ্যাস পাইপলাইনে হামলার পর ঐ অঞ্চলে মাশরুম আকৃতির ধোঁয়ার কুণ্ডলী উঠছে।

ইউক্রেনের কর্তৃপক্ষ থেকে জানানো হয়, রুশ বাহিনী হামলা চালালেও রাশিয়ার প্রাকৃতিক গ্যাস পশ্চিমাম দেশগুলোতে পাঠানো অব্যাহত রেখেছে তারা।

এদিকে ইউক্রেনে রুশ হামলার চতুর্থ দিনে এসে পূর্ব ইউক্রেনে ১৯ জন বেসমরিক মানুষ নিহত এবং আরও ৭৩ জন আহত হয়েছেন। রুশ সেনারা ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভের দখল নিতে জোর চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। তবে ইউক্রেনের সামরিক বাহিনী আর সাধারণ জনগণের প্রাণপণ চেষ্টায় এখনও রুশ বাহিনী কিয়েভের দখল নিতে সক্ষম হয়নি। কিয়েভের আশেপাশের অঞ্চলগুলোতে ক্রমাগত রুশ বাহিনীর সাথে লড়াই চলছে ইউক্রেনের সেনা আর সাধারণ নাগরিকদের। আশেপাশের অঞ্চলগুলো থেকে কিয়েভে ক্ষেপনাস্ত্র হামলা চালানো হলেও সেখানকার নিয়ন্ত্রণ নিতে হলে শহরে প্রবেশ করতেই হবে রাশিয়ান সেনাদের। তবে তাদের সে আশার মুখে তীব্র প্রতিরোধ গড়ে দাঁড়িয়ে যাচ্ছে আপামর ইউক্রেনীয়।

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি জানিয়েছেন, রাজধানী কিয়েভ এখনও ইউক্রেনের নিয়ন্ত্রণেই রয়েছে। জেলেনস্কি কিয়েভ ছেড়ে পালিয়েছেন, রাশিয়ার পক্ষ থেকে এমন দাবি করা হলেও তিনি বারবার নিজের অবস্থানের জানান দিয়ে বলছেন, আমি কিয়েভেই আছি।

বিবিসির এক সংবাদে বলা হয়, শনিবার নতুন এক ভিডিও বার্তায় জেলেনস্কি বলেছেন, ‘শুনুন, আমি এখানেই আছি। আমরা আমাদের অস্ত্র ফেলবো না। আমরা আমাদের দেশকে রক্ষা করবো। কারণ, আমাদের কাছে এখন আমাদের অস্ত্রই সত্য। আমাদের ভূমি, আমাদের দেশ ও আমাদের সন্তান সত্য, এগুলোর সবকিছুকেই আমরা রক্ষা করব।’

সূত্র : বাংলাদেশ জার্নাল
এন এইচ, ২৭ ফেব্রুয়ারি

Back to top button