ক্রিকেট

শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে উগান্ডাকে ছুঁলো ভারত

শিমলা, ২৭ ফেব্রুয়ারি – শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজের দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি ম্যাচে ৭ উইকেটের জয় তুলে নিয়ে সিরিজ নিশ্চিত করেছে ভারত। একইসঙ্গে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে টানা ১১ টি-টোয়েন্টি ম্যাচ জিতে উগান্ডার পাশে নাম লেখালো রোহিত শর্মার দল।

টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে টানা ম্যাচ জয়ের রেকর্ড যৌথভাবে আফগানিস্তান ও রোমানিয়ার। দু্‌ই দলই সমান ১২টি করে ম্যাচ জিতেছে। এরপরের রেকর্ডটা ছিলো উগান্ডা ও আফগানিস্তানের। এবার তাদের সঙ্গে টানা ১১ ম্যাচ জেতার ক্লাবে যোগ দিলেন রোহিত শর্মারা।

২০২১ সালে সংযুক্ত আরব আমিরাতে আফগানিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে ভারতের এই জয়রথ। এরপর স্কটল্যান্ড, নামিবিয়ার পরে ঘরের মাঠে তারা হোয়াইটওয়াশ করেছে নিউজিল্যান্ড ও ওয়েস্ট ইন্ডিজকে। এদিকে ইতোমধ্যে তারা শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে চলমান তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজের দুটিতে জয় তুলে নিয়েছে। শেষ ম্যাচে তাদের হারিয়ে হোয়াইটওয়াশ করতে পারলে ভারত পৌঁছে যাবে আফগানিস্তান ও রোমানিয়ার ক্লাবে। অর্থাৎ টানা ম্যাচ জয়ের রেকর্ড গড়বে ভারত।

এর আগে প্রথম টি-টোয়েন্টিতে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ৬২ রানের জয়ের পর, সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে ধর্মশালায় শনিবার শ্রেয়াস আয়ার ও জাদেজার ব্যাটিং নৈপুণ্যে লঙ্কানদের ৭ উইকেটের ব্যবধানে হারায় স্বাগতিকরা।

হিমাচল প্রদেশে শনিবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) সিরিজের দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি ম্যাচে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে নিসাঙ্কা-শানাকা ঝড়ে শ্রীলঙ্কা নির্ধারিত ওভার শেষে ৫ উইকেট হারিয়ে সংগ্রহ করে ১৮৩ রান। জবাবে ব্যাট করতে নেমে আয়ারের অনবদ্য ৭৪ ও জাদেজার ৪৫ রানের বিধ্বংসী ইনিংসের ওপর ভর করে ২.৫ ওভার হাতে রেখেই লক্ষ্যে পৌঁছে যায় ভারত। লঙ্কান বোলারদের মধ্যে লাহিরু কুমারা ৩১ রান খরচায় দুটি উইকেট শিকার করেন। বাকি এক উইকেট শিকার করতে দুশমান্থা চামিরা খরচা করেন ৩৯ রান।

এর আগে লক্ষ্যে তাড়া করতে নেমে শুরুতেই রোহিতের উইকেট হারায় ভারত। আগের ম্যাচে ৪৪ রান করা ভারত অধিনায়ক ফিরে যান মাত্র ১ রান করে। সুবিধা করতে পারেননি ভারত দলের আরেক ওপেনার ইশান কিষানও। তিনি ১৫ বল মোকাবিলায় করেন ১৬ রান। এর পর ক্রিজে এসে দলের হাল ধরেন শ্রেয়াস আয়ার।

তার সঙ্গে ৮৪ রানের জুটি গড়ে তোলেন সানজু স্যামসন। স্যামসন ২৫ বলে ২ চার ও ৩ ছক্কার মারে ৩৯ রান করে আউট হলে, ক্রিজে এসে তাণ্ডব চালান জাদেজা। শেষ পর্যন্ত দলের জয় নিশ্চিত করে মাঠ ছাড়েন আয়ার ও জাদেজা। আয়ার ৬টি চারের সঙ্গে ৪টি ছক্কার মারে ৪৪ বলে ৭৪ রান করে অপরাজিত থাকেস। অন্যদিকে জাদেজার ১৮ বলে ৪৫ রানের ইনিংসটি সাজানো ছিলো ৭টি চার ও একটি ছক্কার মারে।

এর আগে লঙ্কান ব্যাটার পাথুম নিসাঙ্কা ম্যাচের প্রথম ইনিংসে ১১ চারের সাহায্যে ৫৩ বল মোকাবিলা করে ৭৫ রান সংগ্রহ করেন। অন্যদিকে দাসুন শানাকা ১৯ বলে ৪৭ রানের একটি অপরাজিত বিধ্বংসী ইনিংস খেলেন। তার ইনিংসটি ৫টি ছক্কা ও ২টি চারের মারে সাজানো ছিলো। স্বাগতিক বোলারদের পক্ষে জসপ্রিত বুমরাহ ২৪ রান খরচায় ১টি উইকেট শিকার করেন।

সূত্র : ইত্তেফাক
এন এইচ, ২৭ ফেব্রুয়ারি

Back to top button